Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২৬ চৈত্র ১৪৩০, ২৯ রমজান ১৪৪৫ হিজরী

মেসির গোল : বিশ্বকাপ ফাইনালে ভুল করার কথা স্বীকার করলেন রেফারি

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৫৬ এএম

বিশ্বকাপ ফাইনালে লিওনেল মেসির গোলের সময়ে নিয়মভঙ্গ করেছিল আর্জেন্টিনা শিবির। এই অভিযোগ তুলে মেসির গোল বাতিলের দাবিতে সরব ফ্রান্সের ফুটবল মহল। এহেন পরিস্থিতিতে মুখ খুললেন ফাইনালের রেফারি সিমোন মারসিনিয়াক। সাফ জানিয়ে দিলেন, আর্জেন্টিনা বনাম ফ্রান্সের ম্যাচে তিনি একটি ভুল করেছিলেন। তার এই স্বীকারোক্তির পরে উত্তাল ফুটবল দুনিয়া। অন্যদিকে, ফরসি সমর্থকদের উদ্দেশ্যে একটি পিটিশন সই করছেন আর্জেন্টিনার ফুটবলভক্তরা। প্রায় সাড়ে ছয় লক্ষ মানুষের সই করা এই পিটিশনের দাবি, কান্না বন্ধ করুক ফ্রান্স।

ফাইনালের পরেই একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে নেটদুনিয়ায়। সেখানে দাবি করা হয়, অতিরিক্ত সময়ে মেসি যে গোলটি করেছেন তা বাতিল করা হোক। তার কারণ, ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মেসি যখন গোল লক্ষ্য করে শট মারছেন ওই সময়ে মাঠের মধ্যে ঢুকে পড়েছেন আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা। রিজার্ভ বেঞ্চে থাকা ফুটবলাররা যদি মাঠে উপস্থিত থাকেন, আর ওই সময়ে ওই দল গোল করে দেয়, তাহলে গোলটিকে বাতিল করার কথা লেখা রয়েছে ফিফার নিয়মে। ওই যুক্তিতেই সরব হয়েছেন ফুটবলপ্রেমীরা। কী করে এই বিষয়টি রেফারির নজর এড়িয়ে গেল, ওই অভিযোগও আনা হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে প্রথমবার মুখ খুললেন ফাইনালের পোলিশ রেফারি সিমোন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি স্বীকার করেছেন, ফাইনাল খেলাতে গিয়ে তার একটি ভুল হয়েছিল। সেই সাথে এমবাপ্পের গোলের একটি ছবি দেখিয়েছেন তিনি। রেফারির বক্তব্য, 'এই ছবিতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে, এমবাপ্পের গোলের সময়ও মাঠে ঢুকে পড়েছেন একাধিক ফরাসি ফুটবলার। তাহলে সেটা নিয়ে কেউ মুখ খুলছেন না কেন?' তবে সিমোন মেনে নিয়েছেন, একটা সময়ে ফ্রান্সের আক্রমণ থামিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। 'ওই সময় বিশ্রী ফাউল করেছিল আর্জেন্টিনার মার্কোস আকুনা। তখন ফ্রান্স পুরোদমে আক্রমণ করছিল, কিন্তু আমার মনে হয়েছিল ওই সময়ে খেলা থামিয়ে কার্ড দেখানো উচিৎ। সেটা হয়তো না করলেও হতো। এছাড়া আর কোরো ভুল হয়নি ফাইনালে', স্পষ্ট মত সিমোনের।

বিশ্বকাপ ফাইনালে তীব্র লড়াইয়ের পর দলের হার এখনো হজম করতে পারেননি ফরাসি সমর্থকরা। কার্যত তাঁদের কাটা ঘায়ে নুনের ছিটে দিয়ে একটি পিটিশন শুরু করলেন আর্জেন্টিনার ফুটবলপ্রেমীরা। ওই পিটিশন প্রকাশিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সাড়ে ছয় লাখ মানুষ সই করে দিয়েছেন।

ভ্যালেন্টিন গোমেজ নামে এক আর্জেন্টিনা ভক্তের বানানো ওই পিটিশনের দাবি, কান্না বন্ধ করুক ফরাসি সমর্থকরা। ভ্যালেন্টিনের দাবি, ফরাসিরা কান্না থামিয়ে বুঝে নিক যে মেসিই শ্রেষ্ঠ, আর এমবাপে তাঁর ছেলের সমান। বিশ্বকাপ শেষ হয়ে ক্লাব ফুটবলের মরসুম আবার শুরু হতে চলেছে। তা সত্ত্বেও মেগা টুর্নামেন্ট নিয়ে বিতর্কের ঝড় থামছে না।
সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন



 

Show all comments
  • Mahfuz Masum ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ১০:৫৪ এএম says : 0
    আফ্রিকান এমবাপ্পে এর গোল বাদ করা হোক আর গোল্ডেন বোট ফেরত আনা হোক ,এটা আমাদের আর্জেন্টিনা সমর্থনদের দাবি।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahangir Khan ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ১০:৫৭ এএম says : 1
    আমার মতে এমবাপ্পে কে সমস্ত খেলা থেকে বিরত রাখা কেননা এমবাপ্পে তার দলের বদনাম করছে তাদের দেশের সুনাম নষ্ট করছে সে শুধু ওয়ার্ড কাপে নয় অন্যানন খেলাও দূর্নীতি করে।
    Total Reply(0) Reply
  • Sadi Ashik ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ১১:০১ এএম says : 1
    সত্যি কথা বলতে রেফারি তো নিরপেক্ষ কিন্তু ও কেন এই সব কিছু নিয়ে আসবে মিডিয়ার সামনে এবং কিছু প্রমান করতে হবে সে যদি লিগ্যাল হয়ে থাকে।এই গুলো তো ফিফা করা উচিত মনে হয় ডাল মে কুছ কালা ভুনা হে আর্জেন্টিনা তিনটা কাপ পাইছে আর তিনটাই বিতর্কিত হয়েই গেলো
    Total Reply(0) Reply
  • Subhas Chandra Chowdhury ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ১১:০১ এএম says : 1
    নিজেকে নির্দোষ দাবি না করে চুপ থাকলে ভাল হত। এরকম স্বীকারোক্তি তাকে আরো বিতর্কিত করবে। ভি এ আর এর সাহায্য না নিয়ে পেনাল্টি দেয়ার কোনো কারন ছিল না।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdus Sattar ali ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ১:৩৫ পিএম says : 0
    ফ্রান্সের কাছে আঙ্গুর ফল টক লাগার মতো অবস্থা মনে হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdus Sattar ali ২৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ১:৩৫ পিএম says : 0
    ফ্রান্সের কাছে আঙ্গুর ফল টক লাগার মতো অবস্থা মনে হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Rifat siddique ৩১ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৩০ পিএম says : 0
    ফ্রান্সের শেষের পেনাল্টিই তো বিতর্কিত, অনিচ্ছাকৃত হাত লাগলে ফ্রি কিক দেয়া যেতো সেখানে পেনাল্টি দিয়ে বসে আছে রেফারী। সেদিক দিয়ে দেখলে গোল্ডেন বুট মেসির পাওনা এমবাপ্পে বরং পেনাল্টিতে ইজি গোল দিয়ে নিয়ে গেছে। আর বাংলাদেশী ব্রাজিল ফ্যানরা বিতর্কিতভাবে জেতা এই সেই করে কান্না করতে থাক এসব কথা বিশ্বে কেউ বলে না যারা স্পোর্টস পণ্ডিত। তোরাই মূর্খের মত চিল্লাস আগে খেলা নিয়ে জ্ঞান বাড়া।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাতার বিশ্বকাপ

২৮ নভেম্বর, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ