Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবন ১৪৩১, ১০ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে ন্যাটোর রয়েছে অশুভ উদ্দেশ্য

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম গেøাবাল টাইমস গত শুক্রবার জানিয়েছে, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে উত্তর আটলান্টিক চুক্তি সংস্থার (ন্যাটো) একটি খারাপ উদ্দেশ্য রয়েছে। একটি মতামতের অংশে, গেøাবাল টাইমস এমন প্রতিবেদনের বিষয়ে কথা বলেছে যে, ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি ন্যাটো সদস্যদের একটি বৈঠকের জন্য হোস্ট করবে যা সম্ভবত ভারতীয় প্রতিরক্ষা এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের অন্তর্ভুক্ত করবে।

অপ-এড বলেছে, চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন দ্ব›েদ্ব ন্যাটো প্রচÐ চাপের সম্মুখীন হচ্ছে, বিশেষ করে মস্কোর সা¤প্রতিক আক্রমণে। মনে করা হয়, এটি এতটা শক্তিশালী নাও হতে পারে। সংস্থাটি বহিরাগত সহায়তা বা নৈতিক সমর্থন চাচ্ছে। এছাড়া, ন্যাটোর এখনও এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সাথে তার সম্পর্ক প্রসারিত করার মন্দ উদ্দেশ্য রয়েছে, যা অবশ্যই আঞ্চলিক শৃঙ্খলাকে ব্যাহত করবে। এ অঞ্চলে তাদের সম্পৃক্ততাকে আরো গভীর করার জন্য একটি স্প্রিংবোর্ড হিসাবে ভারতকে ব্যবহার করার আশা করছে। ফলে চীনের নিয়ন্ত্রণ শক্তিশালী হবে এবং পশ্চিম এবং পূর্ব দিক থেকে রাশিয়াকে আটকে রাখবে।

গেøাবাল টাইমসের মন্তব্য এমন সময়ে এসেছে যখন মিডিয়া আউটলেট এবং চীনের অন্যরা রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে চলমান যুদ্ধের মধ্যে ন্যাটো এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা অব্যাহত রেখেছে। এছাড়া, যারা নিজেদের চীনের নিয়ন্ত্রণের বাইরে মনে করে, তারা চীন তাইওয়ানের সাথে সম্পর্ক এড়াতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে অনুরোধ করেছে। এদিকে চীন তাইওয়ানকে তার নিজস্ব ভ‚খÐ হিসেবে দাবি করে চলেছে, যা অদূর ভবিষ্যতে তাইওয়ানে সম্ভাব্য আক্রমণের উদ্বেগ প্রকাশ করছে।

অক্টোবরে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বেইজিংয়ে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির ২০তম জাতীয় কংগ্রেস অনুষ্ঠানে এক বিবৃতিতে তাইওয়ানের সাথে একটি ‘শান্তিপূর্ণ পুনর্মিলন’ উল্লেখ করে বলেন, আমরা কখনই শক্তির ব্যবহার পরিত্যাগ করার প্রতিশ্রæতি দেব না। আমাদের প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ রয়েছে।

শি’র করা মন্তব্যের আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে সেপ্টেম্বরে সিবিএসের সিক্সটি মিনিটের সাথে একটি সাক্ষাৎকারের সময় তাইওয়ানে সম্ভাব্য চীনা আক্রমণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়। আক্রমণের ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাইওয়ানকে রক্ষা করবে কিনা এমন প্রশ্নে বাইডেন বলেন, হ্যাঁ, যদি সত্যিই একটি নজিরবিহীন আক্রমণ হয়ে থাকে।

রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে চলমান যুদ্ধের সময় চীন উভয় পক্ষের মধ্যে শান্তির আহŸান জানিয়ে নিরপেক্ষ অবস্থান বজায় রেখেছে। তবে চীন এ যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর সমালোচনাও করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য বেশ কয়েকটি পশ্চিমা দেশ ইউক্রেনকে কয়েক ডজন সামরিক ও অর্থনৈতিক সহায়তা প্যাকেজ সরবরাহ করেছে, যা গেøাবাল টাইমস গত এপ্রিলে বলেছিল, ১০ বছরের যুদ্ধে লড়াই করার জন্য ইউক্রেনকে উৎসাহিত করছে।

অক্টোবরে প্রকাশিত একটি মতামতের অংশে গেøাবাল টাইমস লিখেছিল, ‘সঙ্ঘাত নিজেই একটি পাউডার কেগ থেকে একটি পারমাণবিক চুল্লিতে পরিণত হয়েছে বলে মনে হচ্ছে, কিছু শক্তির কারণে যারা যুদ্ধের শিখা জ্বালিয়েছিল। তাদের মধ্যে ছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের চরম তথাকথিত আর্মাগেডন হুমকির বক্তৃতা’। সূত্র : নিউজউইক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ