Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবন ১৪৩১, ০৯ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

উস্কানি দেয়া বন্ধ করতে ইসরাইলকে আহ্বান চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

আল-আকসার পবিত্রতা বজায় রাখুন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিন কাং বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যের মূল ইস্যু হচ্ছে ফিলিস্তিন। মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি ও স্থিতিশীলতা এবং আন্তর্জাতিক ন্যায়নীতির সাথে এই ইস্যু জড়িত। ফিলিস্তিন ইস্যুর ওপর চীন বরাবরই গুরুত্ব দিয়ে আসছে। তিনি সম্প্রতি মিসরের রাজধানী কায়রোতে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ মন্তব্য করেন।

ছিন কাং ইসরাইলকে ফিলিস্তিনের সাথে পরিস্থিতি আরও খারাপ করতে পারে এমন উস্কানি থেকে বিরত থাকার আহŸান জানিয়ে বলেছেন, বেইজিং এই সমস্যার একটি ন্যায্য এবং স্থায়ী সমাধান সমর্থন করে। তিনি বলেন, ‘ইসরাইলের উচিত সমস্ত প্ররোচনা ও উসকানি বন্ধ করা এবং পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে পারে এমন কোনও একতরফা পদক্ষেপ এড়ানো।’ তিনি ইসলামের তৃতীয় পবিত্র স্থান আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ইসরাইলের উগ্র ডানপন্থি জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ইতামার বেন-গাভিরের প্রবেশের সমালোচনা করেন এবং জেরুজালেমের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পবিত্র স্থানটিতে ‘স্থিতাবস্থা বজায় রাখার’ জন্যও আহŸান জানান। ছিন কাং বলেন, ফিলিস্তিন ইস্যুতে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের অবস্থান স্পষ্ট। তিনি বহুবার বলেছেন: ফিলিস্তিনিরা ঐতিহাসিক অন্যায্যতার শিকার, এ অবস্থা অনির্দিষ্টকাল চলতে পারে না; একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা অস্বীকার করা যাবে না; আন্তর্জাতিক সমাজের উচিত ‘দুই রাষ্ট্র তত্ত¡’-কে দৃঢ়ভাবে আঁকড়ে ধরে রাখা এবং সমস্যা সমাধানে কাজ করা।

চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সাম্পতিককালে ইসরাইল-ফিলিস্তিন সম্পর্কের আরও অবনতি ঘটেছে, যা উদ্বেগজনক। সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর উচিত সংযম বজায় রাখা এবং পরিস্থিতির আরও অবনতি ঠেকাতে কাজ করা। ছিন কাং আরও বলেন, আন্তর্জাতিক সমাজের উচিত ফিলিস্তিন ইস্যুকে অগ্রাধিকার দেয়া এবং ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংলাপ পুনরুদ্ধারে সচেষ্ট হওয়া। সূত্র : সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।



 

Show all comments
  • Md Torikul Islam ১৮ জানুয়ারি, ২০২৩, ৮:৫৯ এএম says : 0
    হে আমার রব তুমি মুসোলমানদে গায়েবি ভাবে হিফাযত করো (আমিন)
    Total Reply(0) Reply
  • Mohmmed Dolilur ১৮ জানুয়ারি, ২০২৩, ৩:০৬ এএম says : 0
    ইসরাইল নয় আমেরিকা করছে এই সমস্ত কিছু।
    Total Reply(0) Reply
  • shirajul islam ১৮ জানুয়ারি, ২০২৩, ৭:৪২ এএম says : 0
    What's benefit to make quarrel none will can able to destroy one each other but regularly died general mass all most both of the country. so requesting to all wise and superpower of the world to solve the problem kindly both of them
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ