Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবন ১৪৩১, ১০ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার ধাক্কায় মাইক্রোচিপ প্রযুক্তি রপ্ত করেছে চীন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

চীন মাইক্রোচিপ ডিজাইনের এক পদ্ধতি আয়ত্ব করেছে যা পূর্বে শুধুমাত্র পশ্চিমাদের নিয়ন্ত্রণে ছিল। পশ্চিমাদের প্রতি এ চ্যালেঞ্জ চীনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাগুলিকে দুর্বল করতে পারে।
পেটেন্ট ফাইলিংগুলো প্রকাশ করে যে, হুয়াওয়ে চিপ তৈরির জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ্ধতিতে অগ্রগতি করেছে। এটা এ সম্ভাবনা বাড়িয়েছে যে, কোম্পানি শেষ পর্যন্ত নিজেরাই সবচেয়ে ছোট এবং সবচেয়ে শক্তিশালী মাইক্রোচিপ তৈরি শুরু করবে।
এ ধরনের উন্নয়ন বেইজিংকে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাগুলো এড়ানোর সুযোগ দেবে। ওয়াশিংটন, ব্রাসেলস এবং লন্ডন বর্তমানে চীনে উন্নত পশ্চিমা-তৈরি কম্পিউটার চিপ ব্যবহারে বাধা দিচ্ছে এ আশঙ্কায় যে, কমিউনিস্ট দেশটি নতুন সামরিক সক্ষমতা বিকাশ করতে পারে যা প্রতিরোধের পশ্চিমা সেনাবাহিনীর শক্তিকে ছাড়িয়ে যাবে।
এটি এসেছে যখন চীন তার অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য চাপের মধ্যে রয়েছে, এই সপ্তাহান্তে নতুন তথ্য প্রকাশের পরে যে, কোভিড-১৯ সংক্রমণ বৃদ্ধি ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে অর্থনৈতিক কার্যকলাপকে সবচেয়ে ধীর গতিতে ঠেলে দিয়েছে।
জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিসংখ্যান দেখিয়েছে যে, শি জিনপিংয়ের নো-কোভিড নীতির আকস্মিক উল্টে যাওয়া এবং এর ফলে ভাইরাসের শহুরে প্রাদুর্ভাব ব্যবসা বন্ধ করতে বাধ্য করেছে। চীনের উৎপাদন পিএমআই নভেম্বরে ৪৮-এর তুলনায় ডিসেম্বরে ৪৭-এ নেমে আসে।
হুয়াওয়ে চীনের অন্যতম বড় বেসরকারি কোম্পানি। মাইক্রোচিপ প্রযুক্তির জন্য এর পেটেন্ট ফাইলিং, নভেম্বরে তৈরি করা হয়েছিল, কিন্তু শুধুমাত্র এ মাসেই বিশ্বের কাছে প্রকাশ করা হয়েছে, একটি সিলিকনের টুকরোতে একটি কম্পিউটার চিপের ভিতরের কাজগুলোকে খোঁদাই করার জন্য অতিবেগুনী আলো ব্যবহার করার একটি পদ্ধতি বর্ণনা করে।
এক্সট্রিম আল্ট্রাভায়োলেট (ইইউভি) লিথোগ্রাফি টেকনিক যাকে বলা হয় তা ব্যবহার করে শুধুমাত্র ন্যানোমিটার আকারের ট্রানজিস্টর তৈরি করা যায়। সবচেয়ে শক্তিশালী কম্পিউটার চিপগুলোতে লাখ লাখ ট্রানজিস্টর থাকে এবং ক্ষুদ্রকরণে অগ্রগতি অত্যন্ত শক্তিশালী চিপ তৈরির সুযোগ দেয়।
এ অত্যন্ত বিশেষ প্রযুক্তি শুধুমাত্র নেদারল্যান্ডস-ভিত্তিক কোম্পানি এএসএমএল দ্বারা হ্যাক করা হয়েছে। ডাচ বৈদেশিক বাণিজ্যমন্ত্রী লেসজে শ্রেনমাচার নভেম্বরে দেশটির সংসদে বলেছিলেন যে, এএসএমএল চিপ প্রযুক্তি দেশের মুকুটের একটি রত্ন যা অবশ্যই সুরক্ষিত করা উচিত।
এ গ্রীষ্মে চীনের ওপর আরোপিত মার্কিন বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞাগুলো বিশেষভাবে ইইউভি প্রযুক্তির আমদানিকে লক্ষ্যবস্তু করেছে। ব্লুমবার্গের মতে, চীনে রফতানি লাইসেন্স প্রত্যাখ্যান করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ডাচ কর্মকর্তাদের আহ্বান জানিয়েছে।
স্থানীয় কোম্পানি হুয়াওয়ে নিজেই চিপ তৈরির উপায় খুঁজে পেয়েছে এমন খবর পশ্চিমা কর্মকর্তাদের মধ্যে উদ্বেগের কারণ হতে পারে। হুয়াওয়ে এ বিষয়ে মন্তব্যের অনুরোধের জবাব দেয়নি।
ইইউভি মেশিনগুলোর প্রতিটির দাম ১৫ থেকে ৩০ কোটি ডলার এবং লন্ডনের একটি বাসের আকারের। কারখানাগুলোতে সাধারণত ৯ থেকে ১৮টি মেশিনের প্রয়োজন হয়, যা নতুন চিপ কারখানার খরচকে বিলিয়নে ঠেলে দেয়।
এএসএমএল মাইক্রোচিপ মেশিনগুলো ইন্টেল, স্যামসাং এবং তাইওয়ানের চিপ জায়ান্ট টিএসএমসি-এর মতো বিশ্বব্যাপী চিপ নির্মাতারা ব্যবহার করে। ২০২২ সালের জানুয়ারিতে ইন্টেল একটি নতুন চিপমেকিং প্ল্যান্ট তৈরিতে সহায়তা করার জন্য পাঁচটি ইইউভি মেশিনের অর্ডার দিয়েছিল।
শুক্রবার পৃথকভাবে, হুয়াওয়ে বলেছে যে, তারা মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে দুই বছরের বাধার পরে ‘স্বভাবিকভাবে ব্যবসায় ফিরে আসছে’।
বছরের শেষের একটি চিঠিতে, চেয়ারম্যান এরিক জু বলেন যে, সংস্থাটি ‘সঙ্কট মোড’ থেকে বেরিয়ে এসেছে, ‘মার্কিন নিষেধাজ্ঞাগুলো এখন আমাদের নতুন স্বাভাবিক এবং আমরা যথারীতি ব্যবসায় ফিরে এসেছি’।
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৯ সালে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের ব্যবহার নিষিদ্ধ করাসহ হুয়াওয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন, যার ওপর ভিত্তি করে হুয়াওয়ের গ্রাহক স্মার্টফোন বিভাগ ছিল।
অন্যান্য পশ্চিমা দেশ ২০২০ সালে যুক্তরাজ্যের মূল টেলিকম অবকাঠামো থেকে হুয়াওয়ে সরঞ্জামগুলো সরানোর জন্য তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আদেশসহ অনুরূপ নিষেধাজ্ঞা অনুসরণ করেছে।
হুয়াওয়ে বেইজিংয়ের সাথে কাজ করতে এবং নিরাপত্তা যোগাযোগ ব্যবস্থায় ব্যাকডোর অ্যাক্সেস অফার করতে বাধ্য হবে এমন উদ্বেগের মধ্যে এসব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। নিষেধাজ্ঞার কারণে ২০২১ সালে হুয়াওয়ের বৈশ্বিক রাজস্ব এক তৃতীয়াংশ কমে যায়, কিন্তু মি. জু বলেন, হুয়াওয়ের ২০২২ সালের বিক্রয় প্রায় ৬৩৬.৯ বিলিয়ন ইউয়ান (৭৬.৬ বিলিয়ন ডলার) স্থির হওয়ার পথে রয়েছে। সূত্র : দ্য টেলিগ্রাফ।



 

Show all comments
  • জাহান খুরশিদ ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৮:৫৯ এএম says : 0
    Very good news
    Total Reply(0) Reply
  • Rabbul Islam Khan ১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৯:০০ এএম says : 0
    আরও আগেই এই ধরনের উদ্যোগ দরকার ছিল।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ