Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবন ১৪৩১, ১০ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

ডনবাসে সংঘর্ষে একদিনে ইউক্রেনের ১২০ সেনা নিহত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০২২, ৬:৫৬ পিএম | আপডেট : ৭:০৪ পিএম, ২ ডিসেম্বর, ২০২২

বৃহস্পতিবার মিত্র বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে ডনবাস এলাকায় অন্তত ১২০ জন ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়েছে। শুক্রবার এলপিআর ও ডিপিআর এর পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এলপিআর পিপলস মিলিশিয়ার মুখপাত্র ইভান ফিলিপোনেঙ্কো জানিয়েছেন, গত দিনে লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিক (এলপিআর) বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী ৭০ জনেরও বেশি হতাহতের শিকার হয়েছে। ‘গত ২৪ ঘন্টায়, এলপিআর পিপলস মিলিশিয়া বাহিনীর সক্রিয় আক্রমণাত্মক অভিযানের ফলে শত্রুর জনশক্তি এবং সামরিক সরঞ্জামের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তাদের ৭৫ জনের মতো সেনা নিহত হয়েছে,’ মুখপাত্রের বরাত দিয়ে এলপিআর পিপলস মিলিশিয়ার প্রেস অফিস জানিয়েছে।

গত দিনে, এলপিআর মিলিশিয়া বাহিনী একটি ইউক্রেনীয় ট্যাঙ্ক, দুটি মনুষ্যবিহীন বিমান যান এবং তিনটি সাঁজোয়া কর্মী বাহকও ধ্বংস করেছে, তিনি বলেছিলেন। গত ২৪-ঘন্টার সময়কালে, এলপিআর ফিল্ড ইঞ্জিনিয়াররা প্রজাতন্ত্রের পোপাসনিয়ানস্কি জেলার কামিশেভাখা এবং ক্যাটেরিনোভকার বসতিগুলির এলাকায় ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর দ্বারা রোপণ করা বিস্ফোরকগুলি সরিয়ে পাঁচ হেক্টরেরও বেশি এলাকা ডি-মাইন করেছে, মুখপাত্র বলেছেন।

এদিকে, শুক্রবার ডিপিআর পিপলস মিলিশিয়ার প্রেস অফিস জানিয়েছে, গত দিনে ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিক (ডিপিআর) বাহিনীর সাথে যুদ্ধে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী ৫০ জনেরও বেশি হতাহত হয়েছে। প্রেস অফিস তার টেলিগ্রাম চ্যানেলে এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘শত্রুর জনশক্তির ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৫০ জনেরও বেশি।’

এছাড়াও, ডিপিআর মিলিশিয়া যোদ্ধারা রাশিয়ান সেনাবাহিনীর সাথে যৌথভাবে ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর একটি স্ব-চালিত আর্টিলারি বন্দুক, তিনটি হাউইটজার কামান, চারটি ট্যাঙ্ক এবং ১০টি সাঁজোয়া যান ও মোটর গাড়ি ধ্বংস করেছে। তারা গত ২৪ ঘন্টায় শত্রুর সাতটি মনুষ্যবিহীন আকাশযানকেও গুলি করে ধ্বংস করেছে, প্রেস অফিস জানিয়েছে। সূত্র: তাস।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সেনা নিহত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ