Inqilab Logo

শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৭ আষাঢ় ১৪৩১, ১৪ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

২০২৩ থেকে করোনা আর মহামারি পর্যায়ে থাকবে না : ডব্লিউএইচওর প্রত্যাশা

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ ডিসেম্বর, ২০২২, ১১:০০ এএম | আপডেট : ১২:৫৩ পিএম, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২২

আগামী ২০২৩ সাল থেকে করোনা আর মহামারি পর্যায়ে থাকবে না বলে আশা করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। বৃহস্পতিবার সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জেনেভায় ডব্লিউএইচওর সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই আশাবাদ জানিয়েছেন সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসুস। সংবাদ সম্মেলনে ডব্লিউএইচও’র মহাপরিচালক বলেন, ২০২০ সালের শুরুর দিকে করোনা মহামারির যে ভয়াবহ তেজ ছিল, গত প্রায় তিন বছরে তার অনেকটাই হ্রাস পেয়েছে। ২০২০ বা ২০২১ সালের চেয়ে বর্তমানে করোনায় দৈনিক আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার অনেক কম।


তাছাড়া এই সময়সীমার মধ্যে বিশ্বের অনেক দেশ সফলভাবে গণটিকা কর্মসূচিও পরিচালনা করেছে। করোনার মুখে খাওয়ার ওষুধও এখন উন্নত দেশগুলোর ওষুধের দোকানে সহজলভ্য। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আমরা মনে করছি, ২০২৩ সালে করোনা আর মহামারি পর্যায়ের রোগ থাকবে না।করোনা মহামারি সংক্রান্ত যে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য ‘পাবলিক হেলথ ইমারজেন্সি অব ইন্টারন্যাশনাল কনসার্ন (পিএইচইআইসি)’ নামে একটি কমিটি গঠন করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তা ও মনোনীত বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে গঠিত এই কমিটি কয়েক মাস পরপর নিয়মিত বৈঠকে বসে। সর্বশেষ ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে বসেছে পিএইচইআইসি’র বৈঠক।

সেই বৈঠকেই ডব্লিউএইচওর কর্মকর্তা ও বিশেষজ্ঞরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান গেব্রিয়েসুস। অবশ্য সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ডব্লিউএইচওর অপর কর্মকর্তা এবং সংস্থার জেষ্ঠ্য মহামারি বিশেষজ্ঞ মারিয়া ভ্যান কারখোভ এ প্রসঙ্গে খানিকটা দ্বিমত পোষণ করেছেন। মারিয়া ভ্যান কারখোভ বলেন, ‘সামনের বছর করোনার মহামারি পর্যায় অবসানের উজ্জল সম্ভাবনা অবশ্যই আছে, তবে সেজন্য এখনও অনেক কাজ বাকি রয়ে গেছে।’ ‘যদি পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষ করোনা টিকার ডোজ না পায়, সেক্ষেত্রে হয়তো আমাদের আরও অপেক্ষা করতে হবে।’

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে বিশ্বের প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। করোনায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনাটিও ঘটেছিল চীনে। তারপর অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি। পরিস্থিতি সামাল দিতে ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। কিন্তু তাতেও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় অবশেষে ওই বছরের ১১ মার্চ করোনাকে মহামারি হিসেবে ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৬৫ কোটি ৫৮ লাখ ১৫ হাজার ৭১১ জন এবং এ রোগে মৃত্যু হয়েছে মোট ৬৬ লাখ ৬৫ হাজার ৬২১ জনের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডব্লিউএইচও

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ