Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২৬ চৈত্র ১৪৩০, ২৯ রমজান ১৪৪৫ হিজরী

পূর্বশর্ত ছাড়াই ইউক্রেনের সাথে আলোচনায় প্রস্তুত রাশিয়া

পশ্চিমা মূল্যক্যাপে তেল উৎপাদন কমানোর ঘোষণা রাশিয়ার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাশিয়া ইরানের তৈরি সিমেন্স টারবাইনগুলোকে প্রতিস্থাপন করবে
পশ্চিমারা রাশিয়াকে ‘বিচ্ছিন্ন’ করতে ব্যর্থ হয়েছে আফ্রিকা থেকে ফিরে : ল্যাভরভ ইউক্রেনে পশ্চিমা সামরিক চালানের ৯০ ভাগ পোল্যান্ডের মধ্য দিয়ে যায় : ডিপিআরে আর্টিওমভস্কে ইউক্রেনের সেনা কমান্ড পোস্টে হামলা রাশিয়ান বাহিনীর : ক্রিমিয়ায় ইউক্রেনের বাহিনীর হামলার অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র : ‘ইউক্রেনে মার্কিন বিশেষ অভিযান বাহিনীর প্রত্যাবর্তন সরাসরি সঙ্ঘাতে জড়িত’
ইনকিলাব ডেস্ক
রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ভারশিনিন জাভেজদা টেলিভিশনের সাথে একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন, রাশিয়া ইউক্রেনের সাথে জড়িত হতে প্রস্তুত, তবে আলোচনার জন্য এমন কোন পূর্বশর্ত থাকা উচিত নয় যা বিদ্যমান বাস্তবতার ওপর ভিত্তি করে হওয়া উচিত ।

টিভি চ্যানেলের ওয়েবসাইটে পোস্ট করা সাক্ষাৎকারের একটি অংশ অনুসারে সিনিয়র রাশিয়ান ক‚টনীতিক বলেছেন, ‘হ্যাঁ, ক্লাসিক অনুসারে যে কোনো শত্রæতা আলোচনায় শেষ হয় এবং স্বাভাবিকভাবেই, যেমন আমরা আগে বলেছি, আমরা এ ধরনের আলোচনার জন্য প্রস্তুত থাকব, তবে শুধুমাত্র যদি সেগুলো কোনো পূর্বশর্ত ছাড়াই আলোচনা হয়, যে আলোচনা বিদ্যমান বাস্তবতার ওপর ভিত্তি করে।

ভারশিনিন বলেছেন, তবে, এটি কিয়েভ নয়, মস্কোর সাথে আলোচনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় ওয়াশিংটন এবং ব্রাসেলস। ‘প্রথমত, এর আগেও [আলোচনা] হয়েছে - আপনি মিনস্কের কথা মনে রেখেছেন এবং আপনার ইস্তাম্বুলের কথা মনে আছে এবং আপনি মনে রাখবেন যে, সেগুলো ইউক্রেনে কারণে ভেঙে গিয়েছিল, তবে আপনি ভালভাবে জানেন যে, সিদ্ধান্তগুলো কিয়েভে নয়, সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে অন্যান্য রাজধানীতে, প্রাথমিকভাবে ওয়াশিংটন এবং ব্রাসেলসে। সুতরাং, সেখানে অনুসন্ধান পাঠানো উচিত’ তিনি যোগ করেন।

বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অধীনে এ ধরনের আলোচনা হতে পারে কিনা মন্তব্য করে ভার্শিনিন বলেছেন, ‘এটা আমাদের ওপর নির্ভর করে না, আমরা আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করেছি এবং শুধুমাত্র মি. বাইডেন যদি যথেষ্ট সতর্ক এবং বুদ্ধিমান হতেন তবে আমি তাকে বোঝাতে চাইছি এবং তার দলবল’ তিনি যোগ করেছেন।

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাশিয়া ইরানের তৈরি সিমেন্স টারবাইনগুলোকে প্রতিস্থাপন করবে : পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা ২০২২ সালের ফেব্রæয়ারি থেকে রাশিয়ায় সিমেন্সের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে বলে রাশিয়া ইরানের তৈরি পানিবিদ্যুৎ কেন্দ্রের টারবাইনগুলোকে প্রতিস্থাপন করবে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে আরটি বলেছে, রাশিয়া প্ল্যান্টে সিমেন্স টারবাইন প্রতিস্থাপনের জন্য ইরানের নকশাকৃত যন্ত্রাংশ উৎপাদন শুরু করেছে। নিষেধাজ্ঞাগুলো জার্মান-নির্মিত সরঞ্জামের পরিষেবাকে বাধাগ্রস্ত করেছে।
রাশিয়া বর্তমানে ছোট এবং মাঝারি টারবাইন উৎপাদন করতে সক্ষম, তবে ১০০-১২০ মেগাওয়াটের মধ্যে বৃহৎ ক্ষমতার টারবাইনগুলো রাশিয়ার অভ্যন্তরে একটি সিমেন্স কারখানায় একত্রিত করা হয়। ২০২২ সালের অক্টোবরে একজন ইরানি কর্মকর্তা বলেছিলেন যে, একটি চুক্তি অনুসারে ইরান তার গ্যাস শিল্পকে সহায়তা করার জন্য রাশিয়াকে ৪০টি টারবাইন সরবরাহ করবে। রাশিয়া এবং ইরান সা¤প্রতিক মাসগুলোতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা বাড়ানোর গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছে কারণ উভয়ই কঠোর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার অধীনে রয়েছে।

পশ্চিমা মূল্যক্যাপে তেল উৎপাদন কমানোর ঘোষণা রাশিয়ার : পশ্চিমা দেশগুলো ইউক্রেনে তাদের কর্মকাÐের কারণে অপরিশোধিত তেলের দাম সীমাবদ্ধ করার পর রাশিয়া শুক্রবার ঘোষণা করেছে যে, আগামী মাসে প্রতিদিন ৫ লাখ ব্যারেল তেল উৎপাদন কমিয়ে দেবে।

সংবাদ সংস্থার খবর অনুযায়ী রাশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার নোভাক বলেছেন, ‘আজ পর্যন্ত আমরা আমাদের সমস্ত অপরিশোধিত পণ্য সম্পূর্ণভাবে বিক্রি করে দিয়েছি, কিন্তু আমরা যেমন আগেই বলেছি, আমরা তাদের কাছে তেল বিক্রি করব না যারা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ‘মূল্যসীমা’ মেনে চলে’। ‘এর সাথে, রাশিয়া স্বেচ্ছায় দিনে ৫ লাখ ব্যারেল উৎপাদন কমিয়ে দেবে। এটা বাজার-শৈলী সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করবে’ তিনি বলেন।

বিশ্লেষকরা বলেছেন যে, ক্যাপের একটি সম্ভাব্য রাশিয়ান প্রতিক্রিয়া হবে তেলের দাম বাড়ানোর চেষ্টা করার জন্য উৎপাদন হ্রাস করা, যা শেষ পর্যন্ত পাম্পে উচ্চতর পেট্রোলের দামের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে, কারণ কম তেল বিশ্ববাজারে এটি তৈরি করে।

আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্ক ব্রেন্ট ক্রুড শুক্রবার ১.৫% বেশি ব্যারেল প্রতি ৮৫.৭৫ ডলারে লেনদেন করেছে।
সাতটি প্রধান গণতন্ত্রের গ্রæপ অ-পশ্চিমা দেশগুলোতে পাঠানো রাশিয়ান তেলের ওপর ব্যারেল প্রতি ৬০ ডলার মূল্যের সীমা আরোপ করেছে। লক্ষ্য হল গত বছর দেখা যাওয়া মূল্যবৃদ্ধি রোধে বিশ্বে তেল প্রবাহিত রাখা, যেখানে রাশিয়ার আর্থিক লাভ সীমিত করা যা ইউক্রেনের বিরুদ্ধে তার অভিযানের জন্য অর্থ প্রদানের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

ক্যাপটি পশ্চিমা সংস্থাগুলোকে বাধা দিয়ে প্রয়োগ করা হয়েছে যেগুলো সীমার ওপরে তেলের দামের স্থানান্তর থেকে শিপিং এবং বীমা পরিষেবাগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করে।
রাশিয়া বলেছে, তারা ক্যাপ পর্যবেক্ষণকারী দেশগুলোর কাছে তেল বিক্রি করবে না, এটি একটি মূল বিষয় কারণ রাশিয়ান তেল স¤প্রতি মূল্যসীমার নীচে বাণিজ্য করছে। তবে, ক্যাপ, বেশিরভাগ রাশিয়ান তেলের ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা এবং অপরিশোধিত তেলের কম চাহিদার অর্থ হল যে ভারত, তুরস্ক এবং চীনের গ্রাহকরা রাশিয়ান তেলের ওপর যথেষ্ট ডিসকাউন্টের জন্য চাপ দিতে সক্ষম হয়েছে। প্রতিদিন ৫ লাখ ব্যারেল হ্রাসের প্রভাব একটি উন্মুক্ত প্রশ্ন কারণ একটি ধীর বিশ্ব অর্থনীতি তেলের তৃষ্ণাকে হ্রাস করে।

তেল উৎপাদকদের ওপেক+ জোট, যার মধ্যে রাশিয়া রয়েছে, অক্টোবরে ঘোষণা দিয়ে তেলের দাম বাড়ানোর চেষ্টা করেছিল যে, এটি প্রতিদিন ২০ লাখ ব্যারেল উৎপাদন কমিয়ে দেবে, শুধুমাত্র ডিসেম্বরের মধ্যে দাম ব্যারেল প্রতি ৮০ ডলারের নিচে নেমে আসবে।
পশ্চিমারা রাশিয়াকে ‘বিচ্ছিন্ন’ করতে ব্যর্থ হয়েছে আফ্রিকা থেকে ফিরে : ল্যাভরভ : রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ শুক্রবার বলেন যে, তার দেশকে ‘বিচ্ছিন্ন’ করার পশ্চিমের প্রচেষ্টা সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছে এবং মস্কো আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল এবং অন্যত্র দেশগুলোর সাথে শক্তিশালী সম্পর্ক গড়ে তুলছে।

ল্যাভরভ প্রায় সপ্তাহব্যাপী আফ্রিকা সফর থেকে ফিরে তার মন্ত্রণালয়ে একটি অনুষ্ঠানে রাশিয়ান ক‚টনীতিকদের বলেন, ‘আজ আমরা নিশ্চিত করতে পারি যে, আমাদের চারপাশে স্যানিটারি কর্ডন দিয়ে রাশিয়াকে বিচ্ছিন্ন করার পশ্চিমাদের পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়েছে’।

তিনি বলেন, ‘ওয়াশিংটন, লন্ডন এবং ব্রাসেলসের সংগঠিত রুশ-বিরোধী বেলেল্লাপনা সত্তে¡ও আমরা আন্তর্জাতিক সংখ্যাগরিষ্ঠের সাথে এ ধারণার ব্যাপক অর্থে ভাল প্রতিবেশী সম্পর্ক জোরদার করছি’।
প্রবীণ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সর্বশেষ সফর তাকে মালি, মৌরিতানিয়া এবং সুদানের পাশাপাশি ইরাকে নিয়ে গেছে। তিনি স¤প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা, এসওয়াতিনি, অ্যাঙ্গোলা এবং ইরিত্রিয়া সফর করেছেন।
পশ্চিমা দেশগুলোর সাথে রাশিয়ার সম্পর্ক, ইতোমধ্যেই বহু বছর ধরে তিক্ত, প্রায় এক বছর আগে ইউক্রেন আক্রমণ করার পরে নতুন করে স্নায়ুযুদ্ধ-পরবর্তী নিম্নস্তরে আঘাত হানে যাকে এটি একটি ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ বলেছিল যা বলেছিল তার নিজস্ব নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য এটি প্রয়োজনীয় ছিল।

ইউক্রেনে পশ্চিমা সামরিক চালানের ৯০ ভাগ পোল্যান্ডের মধ্য দিয়ে যায় : পোল্যান্ডে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত সের্গেই আন্দ্রিয়েভ শুক্রবার রাশিয়ান টিভিতে বলেছেন, ইউক্রেনে পাঠানো সমস্ত সামরিক সরঞ্জামের প্রায় ৯০ শতাংশ পোল্যান্ডের মধ্য দিয়ে যায়, যা তার স্থানান্তরের জন্য একটি ট্রানজিট করিডোর হিসাবে কাজ করে।
ইউক্রেনে যাওয়ার পথে পোল্যান্ডের মধ্য দিয়ে ন্যাটো সরঞ্জামের পরিমাণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘পোলিশ এবং ইউক্রেনীয় কর্মকর্তাদের মতে, পশ্চিমের দ্বারা ইউক্রেনকে দেয়া সব সামরিক সহায়তার ৯০ ভাগ পোলিশ ভ‚খÐের মধ্য দিয়ে যায়। পোল্যান্ড এক ধরনের ট্রানজিট করিডোর হিসাবে কাজ করে, এই সাহায্য পরিবহনের একটি কেন্দ্র, সেইসাথে ভাড়াটে সৈন্যদের স্থানান্তরকে উৎসাহিত করে।

ক‚টনীতিক উল্লেখ করেছেন যে, ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তার জন্য ইইউ মিশনের বেশিরভাগই পোল্যান্ডে কাজ করে।

আন্দ্রেয়েভ বলেছেন, ‘এছাড়া, ইউক্রেনে পাঠানো পশ্চিমা যানবাহন এবং সোভিয়েত তৈরি যানবাহনগুলোর মেরামত সুবিধা পোল্যান্ডে কাজ করে। এভাবে পোল্যান্ড ইউক্রেনে পশ্চিমা সামরিক সহায়তা প্রদানের জন্য সমস্ত ধরনের কার্য সম্পাদন করে’।

ডিপিআরে আর্টিওমভস্কে ইউক্রেনের সেনা কমান্ড পোস্টে হামলা রাশিয়ান বাহিনীর : রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট- জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ শুক্রবার রিপোর্ট করেছেন যে, ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান চলাকালীন রাশিয়ান বাহিনী গত দিনে দোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিক (ডিপিআর) এর আর্টিওমভস্কে ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর কমান্ড পোস্ট এবং জাপোরোজিয়ে অঞ্চলের একটি অস্ত্র ডিপোতে আঘাত করেছে।

মুখপাত্র বলেছেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় অপারেশনাল-কৌশলগত এবং আর্মি এভিয়েশন এয়ারক্রাফ্ট, মিসাইল ট্রুপস এবং রাশিয়ান গ্রæপ অফ ফোর্সের আর্টিলারি ৮৯টি শত্রæ আর্টিলারি ইউনিটকে ফায়ারিং পজিশন, জনবল এবং সামরিক হার্ডওয়্যার ১২২টি এলাকায় আঘাত করেছে। ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর ৯৩তম কমান্ড পোস্ট দোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের আর্টিওমভস্ক স¤প্রদায়ের এলাকায় যান্ত্রিক ব্রিগেড ধ্বংস করা হয়’।

‘এছাড়াও, জাপোরোজিয়ে অঞ্চলের দ্রæঝেলিউবোভকা বসতির কাছে একটি ইউক্রেনীয় ক্ষেপণাস্ত্র/আর্টিলারি আর্মামেন্ট ডিপো ধ্বংস করা হয়েছিল’- জেনারেল যোগ করেছেন।
রাশিয়ান সৈন্যরা গত দিনে খারকভ অঞ্চলের ডভুরেচনয়ে স¤প্রদায়কে সম্পূর্ণরূপে মুক্ত করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন।
মুখপাত্র বলেছেন, ‘কুপিয়ানস্কের দিকে, খারকভ অঞ্চলের ডভুরেচনয়ে স¤প্রদায়টি পশ্চিমী যুদ্ধ গোষ্ঠীর ইউনিটগুলোর আক্রমণাত্মক অভিযানের ফলে সম্পূর্ণর‚পে মুক্ত হয়’।

গত ২৪-ঘণ্টায়, রাশিয়ান সেনাবাহিনীর বিমান চালনা এবং আর্টিলারি লুগানস্ক গণপ্রজাতন্ত্রের নোভোসিওলোভস্কয় এবং খারকভ অঞ্চলের গ্র্যানিকোভকা এবং বেরেস্তোভয়ে এর বসতি এলাকায় ইউক্রেনের জনবল এবং সামরিক সরঞ্জামের ক্ষতি করেছে, জেনারেল বলেছেন।

ক্রিমিয়ায় ইউক্রেনের বাহিনীর হামলার অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র : আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিষয়ক মার্কিন সহকারী প্রতিরক্ষা সচিব ড. সেলেস্ট ওয়ালান্ডার ওয়াশিংটনে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেছেন, ওয়াশিংটন ইউক্রেনের একটি অংশ হিসাবে বিবেচনা করে ক্রিমিয়াসহ ইউক্রেনের ভ‚খÐে লক্ষ্যবস্তুতে ইউক্রেনের হামলায় মার্কিন কর্তৃপক্ষের কোনো আপত্তি নেই।

‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সীমানায় ইউক্রেনের আঞ্চলিক অখÐতা এবং সার্বভৌমত্বকে সমর্থন করে এবং এর মধ্যে ক্রিমিয়াও রয়েছে’ তিনি বলেন, ওয়াশিংটন ইউক্রেনের
‘ক্রিমিয়া প্রত্যাবর্তন’ বা উপদ্বীপে রাশিয়ার লক্ষ্যবস্তুতে ইউক্রেনের হামলাকে অস্ত্র সরবরাহ করা সমর্থন করেছে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন। পশ্চিমের কিয়েভ, ‘ইউক্রেনের অধিকার আছে তার ভ‚খÐের প্রতিটি ইঞ্চি রক্ষা করার যেমন আপনি জানেন, আমাদের [মার্কিন] আপত্তি নেই এবং তাদের উদ্দেশ্য অর্জনের জন্য ইউক্রেনের সামরিক অভিযান সীমিত করার চেষ্টা করি না’।

আট বছর আগে, ইউক্রেনে একটি অভ্যুত্থানের পটভ‚মিতে ক্রিমিয়া এবং সেভাস্তোপলের কর্তৃপর্ক্ষ ২০১৪ সালের ১৬ মাচ রাশিয়ার সাথে পুনঃএকত্রীকরণের জন্য একটি গণভোট করেছিল। ভোট দেওয়ার যোগ্যদের ৮০ শতাংশেরও বেশি এতে অংশ নেয় এবং ৯৫.৬ শতাংশ সংশ্লিষ্ট বাসিন্দা রাশিয়ার সাথে পুনর্মিলনের পক্ষে ভোট দেন। ২০১৪ সালের ১৮ মার্চ রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট রাশিয়ান ফেডারেশনে ক্রিমিয়া প্রজাতন্ত্র এবং সেভাস্তোপলকে প্রবেশের বিষয়ে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিলেন এবং ২১ মার্চ, নথিটি ফেডারেল অ্যাসেম্বলিতে অনুমোদিত হয়। গণভোটের নিশ্চিত ফলাফল সত্তে¡ও কিয়েভ ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অংশ হিসাবে স্বীকৃতি দিতে অস্বীকার করে।

‘ইউক্রেনে মার্কিন বিশেষ অভিযান বাহিনীর প্রত্যাবর্তন সরাসরি সঙ্ঘাতে জড়িত’ : ওয়াশিংটনে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনোভ এক বিবৃতিতে বলেছেন, ওয়াশিংটন প্রশাসন ইউক্রেনের সঙ্ঘাতে তার নিয়মিত সৈন্যদের ‘ছদ্মবেশহীন অংশগ্রহণ’ করতে যাবে যদি তারা সে দেশে মার্কিন বিশেষ অপারেশন বাহিনীর কার্যক্রম পুনরায় শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়। তিনি ইউক্রেনে মার্কিন বিশেষ অভিযান বাহিনীর কার্যক্রম পুনরায় শুরু করার সম্ভাবনা সম্পর্কে মার্কিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যের বিষয়ে মন্তব্য করছিলেন। এ বিষয়ে একটি নিবন্ধ আগের দিন প্রকাশিত হয়েছিল, বিশেষ করে ওয়াশিংটন পোস্টে।

‘এ পর্যায়ে, আমরা সাংবাদিকদের একটি তদন্তের বিষয়ে কথা বলছি, যা প্রশাসনের অজ্ঞাত সূত্রের ওপর নির্ভর করে। এ বিষয়ে এখনও কোনো আনুষ্ঠানিক তথ্য নেই’ আন্তোনভ জোর দিয়ে বলেন, ‘একই সময়ে একটি পৃষ্ঠায় আলোচনা ইউক্রেনে সম্ভাব্য বিশেষ বাহিনী পাঠানোর বিষয়ে নেতৃস্থানীয় আমেরিকান মিডিয়া অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য। এ ধরনের প্রকাশনাগুলো আবারও সাক্ষ্য দেয় যে, এখানে ওয়াশিংটনে রাশিয়াকে একটি কৌশলগত পরাজয় ঘটানো এবং এ সাধনায় অবর্ণনীয় ঝুঁকির মুখোমুখি হওয়ার জন্য একটি অবাস্তব স্বপ্নের আবেশ রয়েছে’।

কূটনীতিক উল্লেখ করেছেন, ‘যদি মার্কিন নেতৃত্ব ইউক্রেনের ভ‚খÐে বিশেষ অপারেশন বাহিনীর কার্যক্রম পুনরায় শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়, তবে এটি বর্তমান সঙ্ঘাতে নিয়মিত সেনাবাহিনীর ছদ্মবেশী অংশগ্রহণের প্রতিনিধিত্ব করবে’। সূত্র : তাস, প্রেস টিভি, রয়টার্স, এপি নিউজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাশিয়া-ইউক্রেন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ