Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ০৭ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

উগেলদারে শক্তিবৃদ্ধি করেছে রাশিয়া

সংঘর্ষে ২১৫ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত উ. কোরিয়া ‘যুদ্ধক্ষেত্রে’ সবসময় রাশিয়ার সঙ্গে থাকবে : কিমের বোন রুশ বাহিনী ইউক্রেনের ৮৬টি সেনা ইউনিটকে ফায়ারিং পজিশনে আঘাত করেছে রাশিয়ার বিরুদ্ধে স

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

রাশিয়ান বাহিনী দক্ষিণ ডোনেৎস্ক এবং জাপোরোজিয়ে এলাকায় তাদের আক্রমণ অব্যাহত রেখেছে, এসব এলাকায় সংঘর্ষে বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের ২১৫ সেনা নিহত হয়েছে। পাশাপাশি রুশ সেনা ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের উগলেদার শহরে তাদের অবস্থান আরও শক্তিশালী করেছে, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ শুক্রবার রিপোর্ট করেছেন। ওইসব এলাকায় বৃহস্পতিবারের সংঘর্ষে ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৬৫ জন কর্মী, একটি ট্যাঙ্ক, দুটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, একটি ডি-২০ হাউইটজার কামান, তিনটি মোটর যান এবং দুটি মার্কিন তৈরি এএন/টিপিকিউ-৩৭ কাউন্টার-ব্যাটারি রাডার। এছাড়া, ২৬ জানুয়ারী, রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনী দূরপাল্লার বায়ু ও সমুদ্র-ভিত্তিক নির্ভুল অস্ত্র এবং ড্রোন দ্বারা ইউক্রেনীয় সামরিক-শিল্প সেক্টরে জ্বালানি সরবরাহকারী অবকাঠামো এবং পরিবহন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে একটি বিশাল ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়,’ মুখপাত্র বলেছেন।

‘ব্যাপক হামলার লক্ষ্য অর্জিত হয়েছে। টার্গেট করা সমস্ত জায়ঘায় আঘাত করা হয়েছিল,’ কোনাশেনকভ জোর দিয়ে বলেছিলেন। বিশেষ করে, ব্যাপক ধর্মঘট যুদ্ধক্ষেত্রে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীকে ন্যাটো সরবরাহকৃত অস্ত্রসহ অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহ ব্যাহত করেছে, মুখপাত্র বলেছেন, পাশাপাশি রাশিয়ান আর্টিলারি কুপিয়ানস্ক এলাকায় ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর ইউনিটগুলিতে আঘাত হানে, সেখানে তারা গত দিনে ৩০ জনেরও বেশি শত্রæ সৈন্য, দুটি মোটর গাড়ি, একটি মার্কিন তৈরি এম৭৭৭ আর্টিলারি সিস্টেম এবং একটি ডি-২০ হাউইৎজার কামান নির্ম‚ল করেছে।

রাশিয়ান বাহিনী ক্রাসনি লিমান এলাকায় দুটি ইউক্রেনীয় সেনা ব্রিগেডকে আঘাত করেছে, গত দিনে প্রায় ৪০ শত্রæ সেনাকে হত্যা ও আহত করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন। ‘ক্র্যাসনি লিমনের দিকে, রুশ যুদ্ধবিমান এবং আর্টিলারি লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের খারকভ অঞ্চলের ওস্ট্রোভস্কয় এবং স্টেলমাখোভকার বসতিগুলির কাছাকাছি এলাকায় ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর ২৪ তম এবং ৯২ তম যান্ত্রিক ব্রিগেডের ইউনিটগুলির ক্ষতি করেছে। শত্রæর মোট ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৪০ জন কর্মী নিহত ও আহত হয়েছে, তিনটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, তিনটি মোটর যান, একটি ডি-২০ হাউইটজার এবং একটি মার্কিন তৈরি এম৭৭৭ আর্টিলারি সিস্টেম ধ্বংস হয়েছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।

রাশিয়ান বাহিনী গত দিনে ডোনেৎস্ক এলাকায় তাদের আক্রমণে ৮০ জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনাকে নির্মূল করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন। ‘ডোনেৎস্কের দিকে, দক্ষিণী যুদ্ধ গোষ্ঠীর সফল আক্রমণাত্মক অভিযানের ফলে ৮০ জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনাকে নির্ম‚ল করা হয়েছে,’ মুখপাত্র বলেছেন, ‘এছাড়াও, শুচুরোভোর বসতি এলাকায় একটি ইউক্রেনীয় আর্টিলারি গোলাবারুদ ডিপো নিশ্চিহ্ন করা হয়েছিল।’ গত ২৪ ঘন্টায়, রাশিয়ান বাহিনী একটি ইউক্রেনীয় ট্যাঙ্ক, তিনটি পদাতিক যুদ্ধের যান, তিনটি পিকআপ ট্রাক, একটি ডি-২০ হাউইটজার, দুটি ডি-৩০ হাউইটজার, একটি এমস্টা-বি হাউইটজার এবং একটি মার্কিন তৈরি এম ১০৯ প্যালাডিন সেলফ-প্রোপেলড আর্টিলারি বন্দুক একটি মার্কিন-নির্মিত এএন/টিপিকিউ-৫০ কাউন্টার-ব্যাটারি রাডার ধ্বংস করেছে, জেনারেল জানিয়েছেন।

রাশিয়ান বাহিনী গত দিনে খেরসন এলাকায় একটি গ্র্যাড মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেম (এমএলআরএস) এবং একটি মার্কিন তৈরি এম৭৭৭ হাউইটজার ও খারকভ অঞ্চলে ইউক্রেনের একটি এস-৩০০ বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার একটি রাডার স্টেশন ধ্বংস করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন, রাশিয়ান বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী গত দিনে ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের উগলেদারের কাছে একটি ইউক্রেনীয় সু-২৫ যুদ্ধবিমান ও ১১টি ড্রোন গুলি করে ভ‚পাতিত করেছে।

সব মিলিয়ে বিশেষ সামরিক অভিযানের শুরু থেকে রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনী ৩৮০টি ইউক্রেনীয় যুদ্ধ বিমান, ২০৪টি হেলিকপ্টার, ২,৯৬৭টি যুদ্ধ ড্রোন, ৪০২টি সারফেস টু এয়ার মিসাইল সিস্টেম, ৭,৬৪৪টি ট্যাংক এবং অন্যান্য সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, ৯৯১টি মাল্টিপল রকেট লঞ্চার, ৩,৯৩২টি ফিল্ড আর্টিলারি গান ও মর্টার এবং ৮,১৯১টি বিশেষ সামরিক মোটর গাড়ি ধ্বংস করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন।

উ. কোরিয়া ‘যুদ্ধক্ষেত্রে’ সবসময় রাশিয়ার সঙ্গে থাকবে : ডেমোক্রেটিক পিপলস রিপাবলিক অফ কোরিয়া (ডিপিআরকে) সর্বদা রাশিয়ান সেনাবাহিনী এবং জনগণের পাশে ‘একই যুদ্ধক্ষেত্রে দাঁড়াবে’। শুক্রবার উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের বোন ও ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির প্রচার ও তথ্য বিভাগের উপ-পরিচালককিম ইয়ো-জং একথা জানিয়েছেন। কেসিএনএ নিউজ এজেন্সি দ্বারা প্রকাশিত একটি বিবৃতিতে, তিনি প্রতিশ্রæতি দিয়েছিলেন যে, উত্তর কোরিয়া ‘সর্বদা রাশিয়ার সেনাবাহিনী ও জনগণের সাথে একই যুদ্ধক্ষেত্রে দাঁড়াবে, যারা রাষ্ট্রের সম্মান, সার্বভৌমত্বের মর্যাদা এবং তাদের দেশের নিরাপত্তা রক্ষার জন্য দাঁড়িয়েছে’। তিনি ইউক্রেনের কাছে আব্রামস ট্যাঙ্ক হস্তান্তর করার মার্কিন সিদ্ধান্তকে ‘একটি জঘন্য পদক্ষেপ’ বলে নিন্দা করেছেন।

‘আমার কোন সন্দেহ নেই যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিমারা যে অস্ত্র নিয়ে গর্ব করে তা রাশিয়ার বীর সেনা ও জনগণের নিরলস যুদ্ধের চেতনা এবং শক্তির মুখে ধুলোয় পরিণত হবে এবং বাতিল জঞ্জাল হিসাবে থাকবে,’ কিম ইয়ো- জং যোগ করেছেন। উত্তর কোরিয়ার নেতার বোন আরও জোর দিয়ে বলেছিলেন যে, ইউক্রেন ‘মধ্যপ্রাচ্যের কোন মরুভ‚মি নয়, যেখানে ২০ বছর আগে মার্কিন ট্যাঙ্কগুলো স্বাধীনতা কাড়ার জন্য নিয়োজিত ছিল ছিল।’ তিনি মতামত প্রকাশ করেন যে, যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র না থাকে, তাহলে ‘বিশ্ব একটি উজ্জ্বল, নিরাপদ এবং আরও শান্তিপূর্ণ জায়গায় পরিণত হবে’। ‘কোন পরিমাণ বেপরোয়া প্রচেষ্টা সাম্রাজ্যবাদী জোট বাহিনীকে রাশিয়ার সেনাবাহিনী এবং জনগণের বীরত্বপূর্ণ চেতনাকে পরাভ‚ত করতে দেবে না, যা জ্বলন্ত দেশপ্রেম, স্থিতিস্থাপকতা এবং দৃঢ় মনোবলের শক্তিতে বলীয়ান,’ কিম ইয়ো-জং বলেছেন।

রুশ বাহিনী ইউক্রেনের ৮৬টি সেনা ইউনিটকে ফায়ারিং পজিশনে আঘাত করেছে : রাশিয়ান বাহিনী গত দিনে ইউক্রেনের ৮৬টি সেনা ইউনিটকে গুলিবর্ষণ করার সময় আঘাত করেছে। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ গতকাল এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘রাশিয়ান কৌশলগত বিমান, ক্ষেপণাস্ত্র বাহিনী এবং আর্টিলারি বাহিনী ইউক্রেনের ৮৬টি ইউনিটকে ফায়ারিং পজিশনে পরাজিত করেছে।’ ‘পাশাপাশি ১২৪টি এলাকায় ইউক্রেনের সৈন্য ও সামরিক সরঞ্জামে আঘাত হানা হয়েছে,’ তিনি উল্লেখ করেছেন।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে সাইবার আক্রমণ চালাচ্ছে ন্যাটো : কালিনিনগ্রাদ অঞ্চলে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান এবং মস্কোর জ্বালানি অবকাঠামো লক্ষ্য করে চালোনো সাইবার আক্রমণ ন্যাটোর অনুশীলনের সময় সংঘঠিত হয় যা যুক্তরাজ্য নিয়মিতভাবে পরিচালনা করে, উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওলেগ সিরোমোলোটভ তাসকে দেয়া একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন।

‘যুক্তরাজ্য তথ্যের ক্ষেত্রে তাদের আক্রমণাত্মক ক্ষমতা দিয়ে রাশিয়াকে সুশৃঙ্খলভাবে লক্ষ্যবস্তু করছে। রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য অবকাঠামো সুবিধাগুলিতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে আক্রমণের মডেল তৈরি করার জন্য ন্যাটোর পৃষ্ঠপোষকতায় নিয়মিত অনুশীলনগুলি অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ করে, আক্রমণগুলি কালিনিনগ্রাদ অঞ্চলের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান এবং মস্কোর শক্তি ব্যবস্থা অনুকরণ করা হয়,’ তিনি বলেছিলেন।

যুক্তরাজ্যের জাতীয় সাইবার নিরাপত্তা বাহিনী উদ্দেশ্যমূলকভাবে রাশিয়ান ভাষায় কথা বলা আইটি বিশেষজ্ঞদের নিয়োগ করার বিষয়ে টাইমসের প্রতিবেদনের কথা উল্রেখ করে সিরোমোলোটভ বলেছেন যে, এসব ঘটনায় ‘আশ্চর্যের কিছু নেই’। উপরন্তু, তিনি দাবি করেছেন যে, লন্ডন পশ্চিমা তথ্য ক্ষেত্রে রাশিয়ার পররাষ্ট্র নীতি সম্পর্কে তথ্য পরিবর্তন করার জন্য ইন্টারনেটে পদ্ধতিগতভাবে রুসোফোবিয়া প্রচার করছে। সিরোমোলোটভ আরও বলেছেন যে, যুক্তরাজ্য ব্যাপকভাবে ইউক্রেনীয় হ্যাকারদের রুশ-বিরোধী কার্যকলাপকে উৎসাহিত করে।

ইউক্রেনকে হস্তান্তরের ভয়ে জার্মানিতে ট্যাঙ্কের শেল পাঠাবে না ব্রাজিল : ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা জার্মানিতে ট্যাঙ্কের গোলা পাঠানোর বিষয়টি বিবেচনা করতে অস্বীকার করেছেন। কারণ তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যে, গোলাগুলো ইউক্রেনের কাছে হস্তান্তর করা হতে পারে। শুক্রবার সংবাদ মাধ্যম ফলহা দে সাও পাওলো এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গ্রাউন্ড ফোর্স কমান্ডার জুলিও সিজার ডি আররুদার পদত্যাগের আগে শীর্ষ সামরিক কমান্ডের সাথে বৈঠকের সময় গত ২০ জানুয়ারী এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। রিপোর্ট অনুযায়ী, আররুদারই বৈঠকে জার্মানিতে গোলাবারুদ পাঠানোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তবে সেই প্রস্তাব প্রতাখ্যান করে ব্রাজিলিয়ান নেতা যুক্তি দিয়ে বলেছেন যে, ‘রাশিয়ানদের উসকানি দেয়া উচিত নয়।’ সংবাদপত্রের মতে, প্রস্তাবিত গোলাগুলো জার্মানির লেপার্ড ট্যাঙ্কে ব্যবহার করার উপযোগী, একই ধরণের টাঙ্ক ইউক্রেনকে দেয়ার প্রতিশ্রæতি দিয়েছে জার্মানি। তবে এটিই প্রথমবার নয় যে, জার্মানি ইউক্রেনের কাছে জার্মানির তৈরি অস্ত্র হস্তান্তরের বিষয়ে ব্রাজিলের সাথে একটি চুক্তিতে পৌঁছানোর চেষ্টা করেছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, গত বছর, বার্লিনকে গেপার্ড এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমের জন্য গোলাবারুদ বিক্রি করতে অস্বীকার করেছিল ব্রাজিল। সূত্র : তাস, আল-জাজিরা, রয়টার্স, বিবিসি নিউজ।



 

Show all comments
  • মর্মভেদী ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:০৮ এএম says : 0
    েএ যুদ্ধে রাশিয়ার বিজয় হবে
    Total Reply(0) Reply
  • Kma anar ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:১০ এএম says : 0
    ইউক্রেনের এখনই বুঝা উচিত তারা রাশিয়ার সাথে যুদ্ধে পারবে না। বরং তারা নিশ্চিন্ন হয়ে যাবে। এজন্য এখনই আরো সংঘাতের না যেয়ে পুতিনের সাথে সংলাপে বসে একটা আপোষে আসা দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • aman ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:১২ এএম says : 0
    ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধের প্রভাব অন্যান্য দেশে পড়বে। এ যুদ্ধ বন্ধ করার জন্য বিশ্বের শাষকদের জোড়ালো ভূমিকা পালন করা দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • Tutul ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:১৪ এএম says : 0
    এ যুদ্ধ বন্ধ হোক এটা বিশ্বের শাষকরা চান না। যার কারণে তারা এ ব্যাপারে কোনো ভূমিকা পালন করেন না
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাশিয়া-ইউক্রেন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ