Inqilab Logo

রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ০২ আষাঢ় ১৪৩১, ০৯ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

ইউক্রেন যুদ্ধকে নতুন পর্যায়ে নিয়ে গেল জার্মানি: রাশিয়া

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ১০:২৪ এএম

ইউক্রেনে লিওপার্ড ২ ট্যাঙ্ক সরবরাহের অনুমোদনের জার্মান সরকারের সিদ্ধান্ত ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক’ এবং যুদ্ধকে ‘সংঘাতের একটি নতুন স্তরে নিয়ে যাবে’ বলে সতর্ক করেছেন জার্মানিতে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত সের্গেই নেচায়েভ। তিনি বুধবার এক বিবৃতিতে এই সতর্কবার্তা দিয়েছেন।

নেচায়েভ বলেছেন, ‘এই অত্যন্ত বিপজ্জনক সিদ্ধান্তটি যুদ্ধকে নতুন পর্যায়ে নিয়ে যাবে এবং এফআরজির (জার্মান ফেডারেল রিপাবলিক) যুদ্ধে জড়িত হওয়ার অনিচ্ছা সম্পর্কে দেশটির রাজনীতিবিদদের বক্তব্যের বিপরীতে চলে যাচ্ছে।’

ইউক্রেনকে শেষ পর্যন্ত বুধবার লিওপার্ড-২ ট্যাঙ্ক দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে জার্মানি। প্রথম ধাপে ১৪টি ট্যাঙ্ক পাঠাবে বার্লিন। এছাড়া তৃতীয় যেসব দেশ লিওপার্ড ট্যাঙ্ক পাঠাতে চাইছে তাদেরও অনুমোদন দিয়েছে জার্মানি।

নেচায়েভ বলেছেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত, এটি বারবার ঘটছে। আবারও, আমরা দেখতে পাচ্ছি যে তার ঘনিষ্ঠ অংশীদারদের মতোই জার্মানি ইউক্রেনীয় সঙ্কটের কূটনৈতিক সমাধানে আগ্রহী নয়, তাদের হৃদয় স্থায়ী সংঘাত এবং কিয়েভকে আরও বেশি অস্ত্র সরবরাহের সিদ্ধান্তের ওপর স্থির রেখেছে।’



 

Show all comments
  • MD. Sydur Rahman ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ১:০০ পিএম says : 0
    Please stop war.
    Total Reply(0) Reply
  • aman ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ১০:৩৬ এএম says : 0
    বিশ্ব নেতারা রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধ করা উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • Nazmul Hasan ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ১০:৩৫ এএম says : 0
    বিশ্ব নেতৃবৃন্দ রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধ থামানোর ব্যবস্থা করা দরকার।
    Total Reply(0) Reply
  • Nafiul Islam Miah ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:১১ পিএম says : 0
    We urge wold leaders to stop the Russia-Ukraibe war.plz plz stop war.
    Total Reply(0) Reply
  • Rashedul Islam ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ৩:১৩ পিএম says : 0
    তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের পদধ্বনি
    Total Reply(0) Reply
  • MdMasum 1234 ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ১১:০৮ এএম says : 0
    বিশ্ব ৩য় বিশ্বযুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়ানো,,আমেরিকার সিরিয়া,, আফগানিস্তান,,ইরাকের পরে আরো একটি ব্যর্থ যুদ্ধের বহিঃপ্রকাশ ঘটবে। কারণ,,,,রাশিয়া পরমাণু সমৃদ্ধ বৃহৎ দেশ।
    Total Reply(0) Reply
  • Habibur Rahman Khan ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ৪:১৩ পিএম says : 0
    পুতিন একটা পাগল। ১ কোটি ইউক্রেনিয়কে দেশ ছাড়া করেছে। ১০ লাখের মতো হত্যা করেছে। দেশটা বলতে গেলে ধ্বংস করে দিয়েছে। পাগল দিয়েতো রাস্ট্র চলে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Hassan Ahmed Barbhuiya ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ৬:১৫ পিএম says : 0
    stop the Russia-Ukraibe war.plz plz stop war
    Total Reply(0) Reply
  • মো নুরুল ইসলাম ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ৬:৪২ পিএম says : 0
    গুটা জাতির বিপদ হবে পরিনাম
    Total Reply(0) Reply
  • মো নুরুল ইসলাম ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ৬:৪৩ পিএম says : 0
    গুটা জাতির বিপদ হবে পরিনাম
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rafiqul Islam ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ৭:৩৯ এএম says : 0
    ৩য় যুদ্ধ লেগেই কি গেল।।।।। জার্মানি রাশিয়ার সাথে অতীতে হেরেও কি লজ্জা নাই
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rafiqul Islam ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ৭:৩৯ এএম says : 0
    ৩য় যুদ্ধ লেগেই কি গেল।।।।। জার্মানি রাশিয়ার সাথে অতীতে হেরেও কি লজ্জা নাই
    Total Reply(0) Reply
  • Babul Hossain ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, ১১:০৯ পিএম says : 0
    It is imperative to stop the war between Russia and Ukraine, otherwise the world's poor and miserable people will starve to deat
    Total Reply(0) Reply
  • Helal ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ৩:০২ পিএম says : 0
    পুতিন এর কারণে, আমেরিকা ও ইউরোপের অস্ত্র ইউক্রেনের ম্যাধ্যমে পরিক্ষা করার সুযোগ পাইছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Sudhindra Nath Ghosh ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ২:৩০ পিএম says : 1
    আপনি NATO সঙ্গে লড়ার নামে ইউক্রেন আক্রমন করবেন । উদ্দেশ্য মহৎ। ইউক্রেনের সম্পদ করায়ত্ত করা আর ইউক্রেনে বসবাসকারী স্বাধীনতাকামী রাশিয়ানদের সহায়তা দেওয়া। তা আপনি NATO র সঙ্গে লড়বেন আর ইউক্রেনে বুলডোজার চালাবেন অথচ ইউক্রেনের defence এর জন্যে NATO ন্যূনতম অস্ত্র সাহায্য দেবে না এ এক অদ্ভুত হাস্যকর আব্দার । আপনার এ অপকর্মে অনেকের সমর্থন পেলেও পৃথিবীর বূহদাংশের সমর্থন আপনার দিকে নেই ।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Zamir Hossain ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ৮:৪৪ পিএম says : 0
    যে যুদ্ধ এখন শুরু হয়েছে তার পরিকল্পনা হয়েছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরপরই। বিশ্ব মোনাফেক ইহুদী পরিচালিত যুক্তরাজ্য তথা ইউরোপের ও যুক্তরাষ্ট্রের সারা বিশ্ব নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা যে বিশ্বযুদ্ধের মাধ্যমে খর্ব হয়েছিল তা পূনপ্রতিষ্ঠা করতে, বিশ্বে একক নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার প্রধান অন্তরায় সোভিয়েত ইউনিয়নকে ধ্বংস করার অংশ হিসাবে প্রথমে সোভিয়েত ইউনিয়নকে ভাঙ্গা হয়। সে সময় তারা প্রতিশ্রুতিও দেয় যে তারা ন্যাটোকে পূর্ব দিকে সম্প্রসারন করবে না। কিন্ত মোনাফেকের ধর্মই হলো ছলচাতুরির আশ্রয় নিয়ে নিজেদের স্বার্থসিদ্ধি করা। তারা অন্যায় ভাবে প্রতিশ্রুতির মুখে লাথি মেরে একের পর এক ন্যাটোকে পূর্বদিকে সম্প্রসারন করে রাশিয়ার আঙ্গিনায় পৌঁছে রাশিয়াকে চিরতরে ধ্বংস করার পরিকল্পনা বাস্তবায়নের দ্বার প্রান্তে পৌঁছে যায়।অবশেষ তারা ইউক্রেনকে ন্যাটোভুক্ত করে রাশিয়ার কলিজার ভিতর প্রবেশের চুড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে যায়। পশ্চিমারা বিশ্বকে একক নিয়ন্ত্রণে নেয়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে আর রাশিয়া আত্মরক্ষার চেষ্টা করছে মাত্র। এ যুদ্ধ শুধু রাশিয়ার নয় ভাই। এখানে সারা বিশ্বের মানুষের স্বাধীনতার প্রশ্ন বেচে থাকার প্রশ্ন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেন-রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ