Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৫ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিজরী

ভারতের সাথে যুদ্ধ দুঃখ ও দারিদ্র্য নিয়ে এসেছে: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ৩:০১ পিএম

কাশ্মীর সমস্যা সমাধানের জন্য আলোচনায় বসতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ। একটি সাম্প্রতিক সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন যে, তার দেশ ভারতের সাথে যে তিনটি যুদ্ধ করেছে, সেগুলো জনগণের জন্য দুর্দশা, দারিদ্র্য ও বেকারত্ব নিয়ে এসেছে।

দুবাই-ভিত্তিক একটি নিউজ চ্যানেল আল আরাবিয়া টিভির সাথে কথা বলার সময়, শেহবাজ শরীফ অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং সংখ্যালঘুদের নিপীড়নের জন্য ভারতকে অভিযুক্ত করেন এবং পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে নরেন্দ্র মোদিকে অনুরোধ করেছিলেন।

শরীফ আরও জোর দিয়ে বলেছিলেন যে, ভারত ও পাকিস্তান প্রতিবেশী এবং তাদের উচিত সংঘর্ষে সম্পদ নষ্ট না করে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস এবং একসাথে অগ্রগতি করার চেষ্টা করা। তিনি ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বোমা এবং গোলাবারুদের মতো সামরিক সরঞ্জামের জন্য সম্পদ নষ্ট করার পরিবর্তে দারিদ্র্য দূরীকরণ, সমৃদ্ধি অর্জন এবং শিক্ষা, স্বাস্থ্য সুবিধা ও কর্মসংস্থান প্রদানে ব্যবহারের জন্য আহ্বান জানান।

পারমাণবিক যুদ্ধের পর বিপর্যয়কর পরিণতি সম্পর্কে সতর্ক করে শরীফ বলেন, যখন উভয় দেশ পারমাণবিক অস্ত্রে সজ্জিত হয় এবং যুদ্ধ শুরু হয়, তখন কী ঘটেছিল তা বলার জন্য কাউকে বাকি থাকবে না।

ভারতের ও পাকিস্তান দু’টি দেশই পরমাণু শক্তিধর। ফলে যুদ্ধ বাঁধলে দুই দেশের কী পরিণতি হতে পারে তা ভেবেও চিন্তিত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। উল্লেখ্য, সম্প্রতি দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ শাহবাজ চৌধুরী উপসম্পাদকীয় লেখেন। সেখানে তিনি দ্রুত পাকিস্তানের অর্থনীতিকে মজবুত করায় জোর দিয়েছেন। অন্যদিকে ভারত যে, ২০৩৭ সালের মধ্যে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তি হয়ে ওঠায় নজর দিয়েছে, সেকথাও বলেছেন তিনি। সূত্র: এমএসএন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান-ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ