Inqilab Logo

সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১, ১৭ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

অবশেষে ২ বছর পর কারামুক্ত হলেন ভারতীয় সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পান

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১০:১৮ এএম

উত্তর প্রদেশে উচ্চবর্ণের চার হিন্দু পুরুষ দ্বারা এক দালিত নারী ধর্ষণ ও মৃত্যুর ঘটনার খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে গ্রেপ্তার হন তিনি। ধর্ষণের একটি ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ করতে ২০২০ সালের অক্টোবরে উত্তর প্রদেশে গিয়ে গ্রেপ্তার হওয়া ভারতীয় সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পান জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। -বিবিসি

উত্তর প্রদেশের হাতরাস জেলায় এক দলিত নারীকে উচ্চবর্ণের চারজন হিন্দু পুরুষ ধর্ষণ করলে মারাত্মক জখম ওই তরুণী দিল্লির একটি হাসপাতালে মারা যান। মাত্র ১৯ বছর বয়সী ওই তরুণী ধর্ষণ এবং তার মৃত্যুর ঘটনা ভারতজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি করেছিল। ঘটনাটি নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন তৈরি করতে সিদ্দিক একটি গাড়িতে আরও তিনজনকে নিয়ে উত্তর প্রদেশ যান।

 

সেখানেই পুলিশ তাকে এবং বাকি তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে ‘বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি এবং সহিংসতা উসকে দেওয়ার চক্রান্ত করার’ অভিযোগ আনা হয়। তারা সবাই ওই অভিযোগ অস্বীকার করেন। সিদ্দিকের বিরুদ্ধে দুইটি মামলা হয়। তিনি জামিনের আবেদন করলে গত সেপ্টেম্বর মাসে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে তাকে একটি মামলায় জামিন দেন। ডিসেম্বরে এলাহাবাদ হাই কোর্ট দ্বিতীয় মামলায় তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

কিন্তু নানা কেতাবি কারণ দেখিয়ে এক মাসের বেশি সময় পর শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার সিদ্দিককে কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়া হয় বলে জানায় বিবিসি। লখনউ কারাগার থেকে বের হয়ে সিদ্দিক বিবিসি’কে বলেন, তিনি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ নিয়ে আইনি লড়াই চালিয়ে যাবেন। সিদ্দিক বলেন, ‘‘আমি সাংবাদিকতা চালিয়ে যাব। আমি চুপচাপ বসে থাকব না। সবকিছুর পর, আমি একজন সাংবাদিক...আমি কোথায় পালাব?” কেরালার বাসিন্দা সিদ্দিক গ্রেপ্তার হওয়ার আগে মালায়ালাম ভাষার নিউজ পোর্টাল ‘আঝিমুখাম’ এ কাজ করতেন।

গ্রেপ্তার হওয়ার পর পুলিশ তাকে শারীরিক ও মানসিক নিপীড়ন করেছে বলে অভিযোগ করেছেন এই সাংবাদিক। তিনি ডায়বেটিসে আক্রান্ত। তার পরিবারের অভিযোগ, কর্তৃপক্ষ তাদের সিদ্দিককে ডায়বেটিসের ওষুধ সরবরাহ করতে দেয়নি। পুলিশ অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। পুলিশের দাবি, সিদ্দিক এবং তার সঙ্গে থাকা ব্যক্তিরা পপুলার ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়ার (পিএফআই) সদস্য।

জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পর্ক আছে অভিযোগ তুলে গত বছর কেরালা ভিত্তিক কট্টর মুসলমানদের সংগঠন পিএফআই কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ভারত সরকার। যদিও স্বয়ং পিএফআই বলেছে, সিদ্দিক তাদের দলের কেউ না। সিদ্দিকের আইনজীবী এবং কেরালার সাংবাদিক ইউনিয়ন থেকেও তার পিএফআই এর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ সত্য নয় বলে জানিয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ