Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৫ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিজরী

সউদী আরবে গত এক বছরে ১৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১১:২৫ এএম

সউদী আরবের নেতা মোহাম্মদ বিন সালমানের শাসনামলে মৃত্যুদণ্ডের হার প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। সউদী আরবের ইতিহাসে গত ছয় বছর ছিল সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী সময়। শুধু গত বছরেই দেশটিতে ১৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মানবাধিকার সংস্থাগুলোর বরাত দিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলেছে, সউদী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের শাসনামলে ব্যক্তি স্বাধীনতাসহ আরও নানা বিষয়ে ব্যাপক সংস্কারের মাধ্যমে সউদী আরব আধুনিকতার দিকে প্রবেশ করলেও দেশটিতে মৃত্যুদণ্ডের হার ঐতিহাসিকভাবে বেড়েছে। বিশেষত, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীলতার পরিচয় দিয়েছেন মোহাম্মদ বিন সালমান।
ইউরোপিয়ান সউদী অর্গানাইজেশন ফর হিউম্যান রাইটস এবং রিপ্রিভ নামের দুটি সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সউদী আরবে ২০১৫ সাল থেকে ২০২২ সালের মধ্যে প্রতি বছর গড়ে ১২৯ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। ২০১০ সাল থেকে ২০১৪ সালের পর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের হার প্রায় ৮২ শতাংশ বেড়েছে। গত বছর ১৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে, যাদের মধ্যে অন্তত ৯০ জন অহিংস ছিলেন।
সংস্থা দুটি আরও বলেছে, গত বছরের ১২ মার্চ পর্যন্ত ৮১ জনের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এটি সউদী আরবের ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ সংখ্যক মৃত্যুদণ্ড।
মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, সউদী আরবের মৃত্যুদণ্ডের আবেদন বৈষম্য ও অবিচারে ছেয়ে গেছে এবং সউদী সরকার আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে এর ব্যবহার নিয়ে মিথ্যা বলেছে। ভিন্নমতাবলম্বী ও প্রতিবাদকারীদের নির্মূল করার জন্য মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।
গত ছয় বছরে সউদী আরবে শিশু, নারী ও বিদেশি নাগরিকদের মৃত্যুদণ্ডের সংখ্যাও সামান্য বেড়েছে। সম্প্রতি দেশটিতে মাদকের অপরাধে মৃত্যুদণ্ডের ওপর স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। এর আগে এশিয়ার এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে কেবল ইরানেই ব্যাপক মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হতো।
সউদী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতায় আসার পর সউদী সমাজে ব্যাপক সংস্কার করেছেন। এর মধ্যে নারীদের কর্মক্ষেত্রে প্রবেশাধিকার বাড়ানোসহ বিভিন্ন ধরনের সংস্কার পদক্ষেপ নিয়েছেন তিনি। কিন্তু ক্ষমতা নিরঙ্কুশ করার জন্য তিনি ভিন্নমতকে কঠোরভাবে দমন করেছেন। তিনি অসহিষ্ণুতাকে অন্য মাত্রায় নিয়ে গেছেন। রাজনৈতিক ও ব্যবসায়িক প্রতিদ্বন্দ্বীদের গণ হারে আটক করেছেন। এ ছাড়া তিনি মৃত্যুদণ্ডকে অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী আরব


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ