Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২৬ চৈত্র ১৪৩০, ২৯ রমজান ১৪৪৫ হিজরী

উত্তর প্রদেশের পর উত্তরাখন্ড ও কর্নাটকে মাদরাসা সমীক্ষার নির্দেশ

সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় ও শিক্ষক শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ অক্টোবর, ২০২২, ১২:০২ এএম

ভারতের উত্তর প্রদেশের পর একে একে বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোর মাদরাসায় সমীক্ষা চালানোর নির্দেশ দিচ্ছে বিজেপি সরকার। ভারতের সর্ববৃহৎ রাজ্যটির পর উত্তরাখন্ড এবং সর্বশেষ কর্নাটক রাজ্যকেও একই প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর ফলে দেশজুড়ে সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায় ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। বিজেপির অভ্যন্তরীণ সূত্র জানিয়েছে, রিপোর্ট জমা দেওয়ার পর, মাদরাসাগুলোকে নিষিদ্ধ করা উচিত বা এগুলো শিক্ষা বিভাগের এখতিয়ারে আনা উচিত কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
কর্ণাটক সরকার শিক্ষা বিভাগকে রাজ্যের মাদরাসাগুলোর কর্মকাÐের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। গতকালের এ নির্দেশের ফলে সেখানে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, হিন্দু সংগঠনগুলো রাজ্যে মাদরাসা নিষিদ্ধের দাবির মধ্যে শিক্ষা বিভাগ এ প্রক্রিয়া শুরু করেছে। মাদরাসায় সন্দেহজনক কার্যক্রম চলছে বলে হিন্দু জঙ্গি সংগঠনগুলো অভিযোগ করে আসছে। সরকার শিক্ষা বিভাগকে রাজ্যের ৯৬০টি মাদরাসার রিপোর্ট জমা দিতে বলেছে। শিক্ষা অধিদফতরের কমিশনারের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে, যারা মাদরাসার কার্যক্রম সম্পর্কে সমন্বিত প্রতিবেদন দেবে।
বিজেপির অভ্যন্তরীণ ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, কর্ণাটকের ক্ষমতাসীন বিজেপি মাদরাসাগুলোর সাথে সম্পর্কিত উত্তর প্রদেশ সরকারের আদলে মাদরাসাগুলোতে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছে।

এর আগে উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের পর প্রতিবেশী উত্তরাখন্ডেও মাদরাসাগুলোতে সমীক্ষা চালানোর নির্দেশ দেয় ওই রাজ্যের বিজেপি সরকার। এতে মাদরাসা পরিচালকরা কোনো আপত্তি করেনি। কিন্তু উত্তরপ্রদেশের মতোই উত্তরাখÐের মাদরাসাগুলোতে সমীক্ষা করা নিয়ে রাজনৈতিক উত্তাপ বেড়ে গেছে।

বিজেপির সাবেক মুখপাত্র শাদাব শামস স¤প্রতি উত্তরাখÐ ওয়াকফ বোর্ডের সভাপতি হওয়ার পরে তিনিই এই সমীক্ষার কথা বলেছিলেন। পরে মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামিও মাদরাসা-সমীক্ষার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন। এসবেরও আগে, প্রায় সাড়ে চার মাস আগেই উত্তরাখÐের সমাজ কল্যাণমন্ত্রী এই সমীক্ষার লিখিত আদেশ দিয়েছিলেন।

উত্তরাখÐ ওয়াকফ বোর্ডের দায়িত্ব নেয়ার পরে রাজ্য বিজেপির মুসলিম নেতা শাদাব শামস দলীয় এজেন্ডা অনুযায়ী কাজ করতে শুরু করে দেন। রুড়কির বিখ্যাত দরগা পিরান কালিয়ারকে নেশা করার জায়গা আর সেখানে দেহব্যবসা চলে বলে মন্তব্য করেন তিনি। এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হলে তিনি নিজের বয়ান বদলে ফেলে বলেন, তিনি দরগার কথা বলেননি, ওই বিধানসভা এলাকা আর গ্রামটির কথা উল্লেখ করেছিলেন।

এরপরেই তিনি বলেন যে, উত্তরপ্রদেশের মতোই উত্তরাখÐেও মাদরাসাগুলোতে সমীক্ষা চালানো দরকার। পরের দিনই মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামিও সেই কথায় সায় দেন। মুখ্যমন্ত্রী এও বলেন যে, অনেকের কাছ থেকে তিনি মাদরাসাগুলোর ব্যাপারে অভিযোগ পেয়েছেন। সেজন্যই বাস্তব পরিস্থিতিটা জানার জন্যই মাদরাসা সমীক্ষা করাতে চান তিনি। কিন্তু সেই সমীক্ষার সরকারী নির্দেশ অনেক আগে, এপ্রিল মাসেই দিয়েছিলেন সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী চন্দন রামদাস। সূত্র : বিবিসি, আইএএনএস।



 

Show all comments
  • jack ১ অক্টোবর, ২০২২, ১:২০ পিএম says : 0
    ও আল্লাহ মুসলিম বলে কেউ আর অবশিষ্ট নাই আমাদেরকে সাহায্য করো সরাসরি হিন্দুত্ববাদী মোদি সরকার কে ধ্বংস করে আল্লাহ তুমি আমাদের কাছে আবার ফিরিয়ে দাও ইন্ডিয়াকে আমরা কোরআন নিয়ে দেশ শাসন করব তাহলে সবাই মিলেমিশে শান্তিতে বসবাস করতে পারবে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ