Inqilab Logo

শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৭ বৈশাখ ১৪৩১, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫ হিজরী

মতলবে নৈশপ্রহরীদের বেঁধে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি

চাঁদপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার, | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৭:২২ পিএম

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও বাজারে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে ৪ টি স্বর্ণের ও ১ টি মোবাইলের দোকানে ডাকাতি সংঘটিত হয়। এতে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মুঠোফোনের দামি সেটসহ প্রায় ২৬ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় ডাকাতের দল। খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নায়েরগাঁও বাজার ও থানা সূত্রে জানা গেছে, সোমবার দিবাগত রাত দুইটায় ১৫/২০ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাতদল নদীপথে স্পিডবোটযোগে নায়েরগাঁও বাজারে প্রবেশ করেন। ডাকাতেরা বাজারটির ৮ জন নৈশপ্রহরীর মধ্যে ৭ জনকে একত্রিত করে সেখানকার একটি দোকানের সামনে হাত-পা রশি দিয়ে বেঁধে মুখে স্কচটেপ লাগিয়ে একটি দোকানে ডুকিয়ে সাটার বন্ধ করে আটকে রাখে। নৈশ প্রহরী আলা উদ্দিন,বিল্লাল হোসেন, অলিউল্লাহ বলেন, রাত আনুমানিক সোয়া ২টায় ৪/৫ জন অপরিচিত লোক এসে সিগারেট ধরানোর জন্য আগুন চায়। এর পরপরই আরো ১০ থেকে ১৫ জন অস্ত্র নিয়ে এসে তাদের মুখ চেপে ধরে এবং হাত-পা বেঁধে ফেলে। এরপর তারা বাজারের রিংকু দাস, নিত্য গোপাল দাস, প্রদীপ চন্দ্র দাস ও কেশব চন্দ্র দাসের স্বর্ণের দোকান এবং পাশের নুর উদ্দিনের মুঠোফোনের দোকানের শাটারের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন। তারা রিংকু দাসের দোকান থেকে ১৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৪ লাখ টাকা, নিত্য গোপাল দাসের দোকান থেকে আড়াই ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৮০ হাজার টাকা, প্রদীপ চন্দ্র দাসের দোকান থেকে ৪ ভরি রূপা ও কিছু স্বর্ণালঙ্কার, কেশব চন্দ্র দাসের দোকান থেকে নগদ ১৫ হাজার টাকা ও কয়েক ভরি স্বর্ণালঙ্কার এবং নুর উদ্দিনের দোকান থেকে ২০টি মুল্যবান স্মাটফোনের সেট লুট করেন। পরে স্পিডবোটযোগে চলে যান তারা।

নায়েরগাঁও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মাসুদ পাটোয়ারী বলেন, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানতে পারেন বাজার ডাকাতি হয়েছে। তিনি সাথে সাথে বিষয়টি মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশকে অবহিত করেন। থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া খবর পেয়ে ভোর রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং সকালে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাইনুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ সুপার মো. ইয়াছির আরাফাত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত দোকানিদের খোঁজখবর নেন।

মতলব দক্ষিণ থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া বলেন, এটি একটি রহস্যজনক ডাকাতি। পুরো ঘটনার তদন্ত চলছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি ডাকাতির মামলা প্রক্রিয়াধীন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডাকাতি

২৪ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ