Inqilab Logo

সোমবার , ৫ জুন ২০২৩, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪৪ হিজরী

পটুয়াখালীতে এলজিইডির দুই প্রকৌশলীকে মারধর করলো ঠিকাদার

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০২২, ৭:৫২ পিএম

পটুয়াখালীতে এক প্রভাবশালী ঠিকাদারের হাতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তরের (এলজিইডি) দুই কর্মকর্তা মারধোরের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। মারধরের শিকার মোঃ নাজিম উদ্দীন দুমকী উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তরে (এলজিইডি) উপজেলা প্রকৌশলী পদে এবং আ:সালাম একই দপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে কর্মরত রয়েছে। এঘটনায় পটুয়াখালী এলজিইডি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্য ক্ষোভ বিরাজ করছে। পটুয়াখালী মেসার্স পল্লী ট্রেডার্স এর মালিক গোলাম সরোয়ার বাদলের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে পটুয়াখালী স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী জিএম শাহাবুদ্দিন বলেন-প্রাথমিকভাবে এবিষয়ে জেলা প্রশাসন,পুলিশ সুপার এবং সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।

রোববার বেলা ১২টার দিকে দুমকী উপজেলার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল (এলজিইডি) দপ্তরের এমন ঘটনা ঘটে। এঘটনায় ভিকটিমের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট ইউএনওকে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।


মারধরের শিকার দুমকী উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ নাজিম উদ্দীন বলেন ,কলেজ শিক্ষক ঠিকাদার গোলাম সরোয়ার বাদল আজ রোববার দুপুর ১২টার দিকে আমার রুমে আসলে আমি তাকে চা আপ্যায়ন করাই।এ সময় সে তার একটি পুরাতন ব্রিজের কাজের বিলের কথা বললে আমি তাকে বলি আমি এ কর্মস্থলে নতুন এসেছি,নির্বাহী প্রকৌশলীর নির্দেশনা রয়েছে আপনার পুরাতন কাজটির বিষয়ে উপসহকারী প্রকৌশলীর সাথে কথা বলে বিল করার। এ সময় তিনি উত্তেজিত হয়ে গেলে আমি উপসহকারী প্রকৌশলী আ: ছালামকে ডাকি ,তিনি এসে মেজরমেন্ট অনুযায়ী বিলের কথা বললে ঠিকাদার বাদল উত্তেজিত হয়ে আমাকে গালিগালাজ করে টেবিলে থাকা পানির গøাস থেকে পানি আমার মুখে ছুড়ে মাড়েন। এসময় আ: ছালাম প্রতিবাদ করলে ঠিকাদার বাদল তাকে চড় থাপ্পড় মাড়ে ,এ সময় সে আমার গায়েও হাত তোলে।পরবর্তীতে অফিসের অন্য স্টাফরা ডাক-চিৎকার শুনে এগিয়ে আসলে সে তার সহযোগী সহ অফিস থেকে বেড়িয়ে যায়। তিনি চলে যাওয়ার পরপর আমি বিষয়টি সংশ্লিষ্ট নির্বাহী প্রকৌশলী এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করেছি।এ রিপোর্ট লেখার সময় সন্ধ্যা ৭-৩০ মিনিটে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ নাজিম উদ্দীন বলেন আমি এখন থানায় যাচ্ছি অভিযোগ দায়ের করার জন্য।

দুমকী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন অর-রশিদ হাওলাদার বলেন-ঘটনার সময় আমি অফিসে ছিলাম। মারধোরের ঘটনার পর এলজিইডির লোকজন আমাকে এস বিষয়টি অবহিত করলেও আমি গিয়ে ঠিকাদারকে বাদলকে পায়নি।আমি উপজেলা প্রকৌশলীর বাসভবনে গিয়ে তার মুখ থেকে ঘটনাটি শুনে এসেছি। অনাকাঙ্খিত এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন কালকে উপজেলা পরিষদের সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।উপজেলা প্রকৌশলী তার বিভাগীয় প্রধান প্রকৌশলীর নির্দেশনা অনুযায় থানায় অভিযোগ দায়ের করারা কথা রয়েছে।
দুমকী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল সালাম বলেন-আমি শুনেছি। এখন পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ পাইনি অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল ইমরান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন-আমরা এ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি এবং আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।

অভিযুক্ত গোলাম সরোয়ার বাদল বলেন-পুরোনো একটি বিল নিয়ে এলজিইডি টালবাহানা শুরু করে।পুরাতন কাজের বিষয়ে দুমকী উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী আঃ সালামের দাবীকৃত ১০ লাখ টাকা ঘূষের টাকা না দেয়ায় সে আমার বিল আটকিয়ে দেয় , এনিয়ে কথাকাটাকাটির এক পর্যায় উত্তেজিত হয়ে আমি তার গায়ে হাত তুলতে বাধ্য হই। কিন্তু উপজেলা প্রকৌশলীর গায়ে আমি হাত তুলিনি শুধূ মাত্র পানি ছুড়ে মেরেছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পটুয়াখালী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ