Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৬ বৈশাখ ১৪৩১, ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫ হিজরী

এরদোগান-পুতিন বৈঠক শেষ : ইদলিবে যুদ্ধবিরতি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ মার্চ, ২০২০, ৮:৫৫ পিএম

মস্কোর ক্রেমলিন প্রাসাদে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বৈঠক স্থানীয় ৪.৫০ মি. এ শেষ হয়েছে। আঞ্চলিক নিরাপত্তার স্বার্থে ইদলিব যুদ্ধবিরতির ব্যাপারে একমত হয়েছেন তারা। -হুররিয়াত, আল জাজিরাহ, গার্ডিয়ান, মিল্লিয়াত
দু’নেতার বৈঠকের পর প্রতিনিধিদের বৈঠক শুরু হয়েছে। সেখানে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলত ইভুওয়েওলু, জাতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলসী আকাব ও এমআইটি সভাপতি হাকান ফিদান উপস্থিত রয়েছেন বলে মিল্লিয়াতের প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে।
বৈঠকের আগে দুই নেতা সাংবাদিকদের কাছে উন্মুক্তভাবে তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন। এরদোগান বলেন, এখন বিশ্ববাসীর দৃষ্টি ইদলিবে।
প্রেসিডেন্ট এরদোগান প্রথমেই পুতিনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এই অঞ্চলের অনেক সমস্যা রয়েছে। আমরা আজ যে পদক্ষেপ নেব, আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নেব, যা এ অঞ্চল এবং আমাদের দেশগুলোকে পরিচালনা সহজ করবে। তিনি বলেন, সিরিয়ায় প্রাণ হারানো সৈন্যদের প্রতি আমি সমবেদনা জানাতে চাই। আমি যেমন ফোনে কল করেছিলাম, কেউ জানত না যে সিরিয়ান সেনাসহ সেখানে তুর্কি সেনাও রয়েছে।
ইদলিব বিষয়ে আলোচনায় বৃহৎ দুটি দেশের একসঙ্গে বসা এবং বিষয়টির যথাযথ গুরুত্ব বুঝে বৈঠকে আপনার সম্মতির জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। এ অঞ্চলে ইদলিব একটি মহাসমস্যা। আমরা আঘাত নেবো, কিন্তু আমাদের অঞ্চল, আমাদের দেশ তুরস্কের যেন লাভ হয় । আমরা এমন একটি যুগে বাস করছি যখন রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক শীর্ষে।

প্রতিরক্ষা শিল্প এবং আমাদের বাণিজ্যিক সম্পর্ক উভয় ক্ষেত্রেই আমরা খুব আলাদা সময়কালে আছি। আমরা গণনা করছি যে, আমরা তাদের আরও অনেক বেশি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি। এবং অবশ্যই তাদেরকে আরও শক্তিশালী করে গ্রহণ করা আমাদের বৃহত্তম লক্ষ্য। এবং আমি বিশ্বাস করি, আমরা সফল হব। এই গ্রহণযোগ্যতার জন্য আপনাকে আবারও ধন্যবাদ।

রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেন, বরাবরের মতো, আমাদের একটি বড় এজেন্ডা রয়েছে। এমন কিছু ঘটনা ঘটেছিল যেগুলো ইদলিবের ঘটনার কারণে আমাদের ব্যক্তিগতভাবে দেখা করারও প্রয়োজন ছিল। আমি আমাদের কথোপকথন শুরু করার সাথে সাথে সিরিয়ায় প্রাণ হারানো সৈন্যদের প্রতি শোক প্রকাশ করতে চাই। আমাদের ফোনে আমি যেমন উল্লেখ করেছি, কারও মৃত্যু ট্রাজেডি নয়। তারা জানতো না যে, সিরিয়ান সেনাসহ সেখানে তুর্কি সেনাও রয়েছে। সিরিয়ান সেনাবাহিনীর মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আমাদের এই সমস্ত ঘটনা নিয়ে আলোচনা করা দরকার, যাতে এই ঘটনাগুলোর পুনরাবৃত্তি না হয় এবং এই জাতীয় ঘটনাগুলো আমাদের দু'জনেরই তুর্কি-রাশিয়ার সম্পর্কের ক্ষতি না করে। ধন্যবাদ।

 



 

Show all comments
  • Monjur Rashed ৭ মার্চ, ২০২০, ২:২৬ পিএম says : 0
    Good initiative
    Total Reply(0) Reply
  • ABDUL HAKIM MIA ৭ মার্চ, ২০২০, ৭:১১ পিএম says : 0
    মাশাল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • ABDUL HAKIM MIA ৭ মার্চ, ২০২০, ৭:১১ পিএম says : 0
    মাশাল্লাহ
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তুরস্ক-সিরিয়া

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩
৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ