Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ০৭ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

সুন্দর থাকুন ব্যস্ততায়ও

| প্রকাশের সময় : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০৫ এএম

আমাদের জীবনের বড় একটা অংশ পার হয় কাজের ব্যস্ততার মধ্য দিয়ে। এই ব্যস্ততায় নিজের জন্য আলাদা করে কিছুটা সময় বরাদ্দ করা গেলে মানসিক চাপ আর হতাশা থেকে অনেকটাই রেহাই পাওয়া যায়। ব্যস্ততার কারণে ভাল লাগার অনেক কাজই করার সময় হয়ে ওঠে না। ব্যস্ততার মধ্যেও কীভাবে সবকিছু সুন্দরভাবে সাজিয়ে নেওয়া যায়, তারই কিছু উপায় তুলে ধরা হলো এখানে-

” নিজের শখ ধরে রাখা ঃ কাজের চাপ এবং হতাশা ভুলে থাকতে দারুণ কার্যকর হলো শখ। একেক জনের শখের বিষয় একেকটি। ভালবাসেন এমনই একটি কাজকে শখ হিসাবে বেছে নেওয়া উচিত। ছবি আঁকা, সেলাই করা, বাগান করা, ঘর সাজানো এরকম যে কোনও কাজ হতে পারে শখের বিষয়।

” গুরুত্ব অনুসারে কাজ ভাগ করে নেওয়া ঃ কোন কাজ আগে করা উচিত, এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে অনেকেই দোটানায় ভোগেন। তবে একবার এই বিষয় রপ্ত করা গেলে অনেক কাজই সহজ হয়ে যায়।

” নিজের জন্য সময় আলাদা করে রাখা ঃ কাজ এবং অন্যান্য ব্যস্ততায় নিজের জন্য যে আলাদা করে কিছুটা সময় রাখা উচিত তা অনেকেই ভুলে যাই। মাঝে-মধ্যে নিজের মতো করে থাকতে এবং চিন্তা করার জন্য কিছু সময় ভাগ করে রাখা উচিত।

” সুযোগ থেকে অভিজ্ঞতা ঃ জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে নানা সুযোগ পাই আমরা। সেই সুযোগগুলো থেকে সঠিক সুযোগ বেছে নিয়ে সেখানে থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে। এতে জীবনে অভিজ্ঞতার ভান্ডারও পূর্ণ হবে।
” সোসাল নেটওয়ার্কিং সাইট থেকে বিরতি নেওয়া ঃ এই যুগে আমরা একে-অপরের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য কত ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহার করি। তবে মাঝে-মধ্যে উচিত সব ধরনের সোসাল নেটওয়ার্কিং সাইট থেকে বিরতি নেওয়া। এতে জীবন পুরোপুরি উপভোগ করা যায়।

” জীবনের লক্ষ্য নির্ধারণ ঃ একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করে রাখা হলে সেখানে পৌঁছানোর জন্য নিজেকে তাগাদা দেওয়া যায়। আর সব কাজ করার একটি নির্দিষ্ট ধারাও থাকে।

” গুছিয়ে কাজ করার অভ্যাস তৈরি করা ঃ একই কাজে বাড়তি সময় ব্যয় করতে না চাইলে কাজ গুছিয়ে করার অভ্যাস তৈরি অত্যন্ত জরুরি। এতে কম সময়েই কাজ ভালভাবে করা সম্বব হয়।

” ভুল থেকে শিক্ষা গ্রহণ ঃ মানুষ মাত্রই ভুল করে, এটি খুবই প্রচলিত একটি কথা। কিন্তু বারবার একই ভুল করা মোটেই ভাল বিষয় নয়। বরং ভুল শুধরে নিয়ে, সেখান থেকে শিক্ষা নেওয়া এবং দ্বিতীয়বার ওই ভুল আর না করাই মূল বিষয়।

” একটি তালিকা তৈরি করা ঃ কী কী কাজ করা প্রয়োজন, তার একটি তালিকা তৈরি করা হলে ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।

” প্রতিদিন ব্যায়াম করা ঃ সুন্দর স্বাস্থ্য এবং মন ভাল রাখতে নিয়মিত ব্যায়ামের জুড়ি নেই। তাই প্রতিদিন কিছুটা হাঁটাহাঁটি এবং হাল্কা ব্যায়াম করার জন্য সময় আলাদা করে রাখা উচিত।

” মন ভরে খান ঃ ওজন বেড়ে যাওয়ার ভয়ে সবসময়ই মুখরোচক আর পছন্দের খাবার থেকে দূরে থাকেন স্বাস্থ্যসচেতন মানুষ। তবে মন ভরে খাওয়াও জীবনের একটি অংশ। তাই মাঝে-মধ্যে ক্যালোরির হিসাব না করে মন মতো খাবার খেলে মন ভাল থাকবে।

রুটিনমাফিক কাজ করা ঃ দৈনন্দিন কাজের জন্য একটি তালিকা তৈরি করে নেওয়া উচিত। যেমন, সকালে ঘুম থেকে ওঠা, প্রাতরাশ, কাজে যাওয়া, রাতে ঘুমানোর সময় ইত্যাদি একটি নির্দিষ্ট ছকে ফেলে করার অভ্যাস হলে সব কাজ করাই অনেকটা সহজ হয়ে যাবে।

আফতাব চৌধুরী
সাংবাদিক-কলামিস্ট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন