Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবন ১৪৩১, ১০ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

তিন বিমানবন্দরে ওঠানামা বন্ধ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০২২, ১২:০০ এএম

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের কারণে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে উপকূলীয় অঞ্চলের তিনটি বিমানবন্দরে উড্ডয়ন এবং অবতরণ বন্ধ রাখা হয়েছে। সার্বিক নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনা করে উড্ডয়ন ও অবতরণ কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। এসব বিমানবন্দর হচ্ছে- চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং কক্সবাজার ও বরিশাল বিমানবন্দর। গতকাল সোমবার বিকেল ৩টা থেকে আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত এই তিন বিমানবন্দরে উড্ডয়ন-অবতরণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে বেবিচক।

বেবিচক এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আবহাওয়া পূর্বাভাসের প্রেক্ষিতে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের সম্ভাব্য প্রভাবের বিষয়ে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে উপকূলীয় অঞ্চলের তিনটি বিমানবন্দরের উড্ডয়ন এবং সার্বিক নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনা করে উড্ডয়ন/অবতরণ কার্যক্রম বন্ধ রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নোটাম জারি করা হয়েছে। আবহাওয়া পরিস্থিতি বিবেচনা সাপেক্ষে পরবর্তীতে উড্ডয়ন কার্যক্রম পুনরায় চালু করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে সিত্রাং। ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশের ১৩টি জেলায় মারাত্মক আঘাত হানবে, দুটি জেলায় হালকাভাবে আঘাত হানবে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।
সিত্রাংয়ের মারাত্মক আঘাতের কবলে পড়তে যাওয়া ১৩টি জেলা হলো-সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, নোয়াখালী ও ফেনী। অর্থাৎ চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের বেশির ভাগ জায়গায় ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানবে। চট্টগ্রামের হাতিয়া এবং সন্দীপও ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে।#



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘূর্ণিঝড়

২৬ অক্টোবর, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ