Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৪ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিজরী

নভেম্বরেও ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কা

বর্ষাজুড়ে খরা-অনাবৃষ্টির পর দুই মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি

শফিউল আলম | প্রকাশের সময় : ২ নভেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

চলতি নভেম্বর মাসে বঙ্গোপসাগরে এক থেকে ২টি লঘুচাপ-নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এ দেশে ঘূর্ণিঝড়ের অতীত পর্যায়ক্রম থেকে জানা যায়, কার্তিক-অগ্রহায়ণ মাসে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট প্রবল ঘূর্ণিঝড়-জলোচ্ছ্বাস এ অঞ্চলে আঘাত হানে এবং ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। এ মাসে দিন ও রাতের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে হ্রাস পেতে পারে। তবে এ মাসে দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকতে পারে। এ মাসে দেশের উত্তরাঞ্চলে এবং নদ-নদী অববাহিকায় ভোররাত থেকে সকাল পর্যন্ত হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

গতকাল মঙ্গলবার আবহাওয়া অধিদফতরের ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্র ঢাকায় অনুষ্ঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটির সভায় নভেম্বর মাসের দীর্ঘমেয়াদি উক্ত পূর্বাভাস দেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক ও বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান মো.আজিজুর রহমান। পূর্বাভাসে আরও জানা গেছে, নভেম্বর মাসে সামগ্রিকভাবে দেশে স্বাভাবিক হারে বা পরিমাণে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

বিশেষজ্ঞ কমিটির সভার পর্যালোচনায় জানা গেছে, গেল অক্টোবর মাসে সার্বিকভাবে সারা দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে গড়ে ৪৩ শতাংশ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। তবে বিভাগওয়ারি বৃষ্টিপাতের হার ও পরিমাণে তারতম্য বা অসঙ্গতি রয়েছে। রাজশাহী বিভাগে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত ১২৪ মিলিমিটারের স্থলে ৯৬.২ মি.মি. অর্থাৎ ২২.২ শতাংশ কম বৃষ্টিপাত হয়েছে।

অন্যদিকে বরিশাল বিভাগে স্বাভাবিকের চেয়ে ১৫০ শতাংশ বেশি, সিলেট বিভাগে ১০৮ শতাংশ বেশি, ঢাকা বিভাগে ৭৮.৫ শতাংশ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ বিভাগে গড়ে স্বাভাবিক পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়েছে।

গত সেপ্টেম্বর মাসেও সারা দেশে গড়ে স্বাভাবিক পরিমাণের চেয়ে কিছুটা বেশি বৃষ্টিপাত হয়। বর্ষায় গত আগস্ট মাসে সারা দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে গড়ে ৩৬.৪ শতাংশ কম, ভরা বর্ষাকালে গত জুলাই মাসে দেশে স্বাভাবিকের তুলনায় গড়ে ৫৭.৬ শতাংশ কম বৃষ্টিপাত হয়। এ বছর ভরা বর্ষা কালজুড়ে নজিরবিহীন খরা-অনাবৃষ্টি কবলিত হয় দেশ। তবে পরের দুই মাসে বর্ষাত্তোর সময়ে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশিই বৃষ্টি ঝরেছে। বৃষ্টিপাতে এই অসঙ্গতির কারণে আমন ধানসহ ফল-ফসল উৎপাদন মারাত্মক ব্যাহত হয়।

গত অক্টোবর মাসে দেশের আবহাওয়া পরিস্থিতি পর্যালোচনায় জানা গেছে, অক্টোবরে আন্দামান সাগর সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপ, এরপর নিম্নচাপ থেকে ২৪ অক্টোবর ঘূর্ণিঝড় ‘সিত্রাং’ ও জলোচ্ছ্বাস বরিশাল-চট্টগ্রাম উপকূল দিয়ে আঘাত হানে। সিত্রাংয়ের কারণে পাকা-আধাপাকা আমন ধান ও অন্যান্য ফল-ফসল, মাছের ঘের ও ক্ষেত-খামারের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সিত্রাংয়ের প্রভাবে ২৩ থেকে ২৫ অক্টোবর দেশের অধিকাংশ স্থানে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বৃষ্টি ও কোথাও কোথাও অতি বর্ষণ হয়। এ সময়ে এক দিনেই সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ২৪ অক্টোবর বরিশালে ৩২৪ মি.মি.। যা বরিশালে ৭৪ বছরের রেকর্ড বৃষ্টিপাত। এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১ অক্টোবর সৈয়দপুরে ৩৬.৫ এবং সর্বনিম্ন ৩১ অক্টোবর তেঁতুলিয়ায় ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ মাসে দেশের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে গড়ে যথাক্রমে ০.৯ এবং ০.২ ডিগ্রি সে. ঊর্ধ্বে ছিল।

এদিকে সর্বশেষ আবহাওয়া পূর্বাভাসে জানা গেছে, অস্থায়ীভাবে আকাশ আংশিক মেঘলাসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় দেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে। আবহাওয়া বিভাগ জানায়, মৌসুমের একটি স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। যার বর্ধিতাংশ উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কা
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ