Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবন ১৪৩১, ১৮ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

বিজ্ঞাপনের ছবি এডিট করা! একসঙ্গে ছিলেন না মেসি-রোনাল্ডো

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ নভেম্বর, ২০২২, ৬:৫৩ পিএম

কাপযুদ্ধের মহোৎসবের ঠিক আগে একফ্রেমে বিশ্বের সেরা দুই তারকা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। বিজ্ঞাপনী পোস্ট দেখে আবেগে ভেসেছিলেন ফুটবলপ্রেমীরা। মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায় সেই পোস্টার। কিন্তু নতুন একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই সব হিসেবনিকেষ যেন গুলিয়ে গেল। শুটিংয়ে নাকি দেখাই হয়নি দুই মহাতারকার। আলাদা ভাবেই হয়েছে শুটিং।

এমনিতেই কাতার বিশ্বকাপ নিয়ে দুনিয়াজুড়ে উত্তেজনার পারদ চড়েছে। তার মধ্যেই এই বিজ্ঞাপন যেন সেই উত্তাপ একলাফে অনেকখানি বাড়িয়ে দিয়েছিল। ফুটবল মাঠের দুই অতিমানবকে দেখা যাচ্ছে একটি নামজাদা দামী ব্যাগের বিজ্ঞাপনে। ফুটবল পায়ে অবশ্য নয়, মন দিয়ে দাবা খেলতে দেখা গেল তাদের। ব্যাগ প্রস্তুতকারী ওই সংস্থা লুই ভিত্তরের তরফে ছবিটি পোস্ট করা হয়। লেখা হয়, “সাফল্যটা মানসিক। কেরিয়ারের সবচেয়ে লোভনীয় ট্রফি রাখার স্পোর্টিং ট্রাঙ্কের বিজ্ঞাপনে ফুটবলের সেরা দুই প্রতিভাবান তারকাকে আমরা একফ্রেমে পেয়েছি।” আর এই পোস্ট দেখেই অনুরাগীরা ধরে নিয়েছিলেন হয়তো হাতে হাত ধরেই বিজ্ঞাপনটি শুট করেছিলেন মেসি ও রোনাল্ডো।

এমন ফ্রেম দেখে মুগ্ধ হন ফুটবলপ্রেমীরা। লাইক, শেয়ারের বন্যা বইতে শুরু করে। কিন্তু হঠাৎই ছন্দপতন। কারণ জানা যাচ্ছে, ব্যাগ প্রস্তুতকারক সংস্থাটি আলাদা ভাবে দুই তারকাকে ক্যামেরাবন্দি করেছে। পরে এডিট করে দাবার আসরে মুখোমুখি বসিয়ে দেয়া হয়েছে এলএম টেন ও সিআর সেভেনকে। প্রকাশ্যে আসা ভিডিওতেই তা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে। ভিডিওতে নিজেদের বিজ্ঞাপন করার অভিজ্ঞতাও শেয়ার করেন তারা। তবে পুরোটাই পৃথকভাবে। অর্থাৎ পরস্পরের সঙ্গে তাদের সাক্ষাৎই হয়নি। আর এতেই মনখারাপ অনুরাগীদের। বিশ্বাসভঙ্গ হয়েছে। এমনটাই দাবি মেসি-রোনাল্ডো ভক্তদের।

ভার্চুয়াল ওয়ালে নিজেদের মনখারাপের কথাও লিখেছেন অনেকে। জানান, তাদের মনে হয়েছিল দুই মহারথী হয়তো বিশ্বকাপের আগে মুখোমুখি হয়েছিলেন। কিন্তু তেমনটা কিছুই নয়। ফলে এত চর্চা করে নেহাতই সময় নষ্ট হয়েছে তাদের। এভাবে আলাদা করে শুট করা বিজ্ঞাপন তারা আগেও দেখেছেন। কিন্তু এবারও যে সত্যিটা অন্যরকম, তা যেন মেনে নিতে বড়ই কষ্ট হচ্ছে সমর্থকদের। সূত্র: স্পোর্টস বাইবেল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ