Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবন ১৪৩১, ১০ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

মাথাপিছু আয় ১২ হাজার ডলার করতে ডিসিদের ভূমিকা রয়েছে

সাংবাদিকদের সালমান এফ রহমান

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:২৪ এএম

প্রধানমন্ত্রীর বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ২০৪১ সালের মধ্যে দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ১২ হাজার ডলার করা এবং উন্নত দেশ গড়ার জন্য জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) অনেক ভূমিকা রয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার জন্য তাদের মাঠপর্যায়ে কাজ করার কথা বলা হয়েছে।

গতকাল বুধবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের চতুর্থ অধিবেশনে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এবস কথা বলেন। সালমান এফ রহমান বলেন, ‘তবে কাজ করতে গেলে বিদ্যুৎ, জ্বালানির সমস্যায় পড়তে হয়, এমন অভিযোগ ছিল ডিসিদের পক্ষ থেকে। আমরা বলব, সেটা ধীরে কেটে যাবে।

এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘পবিত্র রমজান সামনে রেখে জিনিসপত্রের দাম নিয়ে কেউ যাতে সুযোগ নিতে না পারে, সে জন্য কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলা প্রশাসকদের। তারা হলেন মাঠপর্যায়ে সরকারের হাত। তাই বাজার মনিটরিংয়ে জেলা প্রশাসকদের বড় ভূমিকা রয়েছে। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন কমার্শিয়াল কাউন্সিলকে শক্তিশালী করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর যে নির্দেশনা আছে, সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। চামড়ার সঠিক দাম পাওয়ার ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসকদের ভূমিকা নিতে হবে।

আসন্ন রমজানে পণ্যের দাম নিয়ে কেউ সুযোগ নিলে তাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) শক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে কোরবানির সময় পশুর চামড়ার দাম নিয়ে কেউ যাতে ছিনিমিনি খেলতে না পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। দেশের সব অনাবাদি জমি চাষাবাদের আওতায় আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আল্লাহ নিজের হাতে গজব না দিলে দেশে দুর্ভিক্ষ হবে না। চালে প্লাস্টিক ব্যাগে থাকলে জব্দ করতে ডিসিদের নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রীরা।

অধিবেশন শেষে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, করোনায় ধান কাটা একটা চ্যালেঞ্জ ছিল, তখন জেলা প্রশাসকরা অসাধারণ ভূমিকা রেখেছেন। আমাদের সহযোগিতা করেছেন। খাদ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে বিতরণ সব কার্যক্রমে ডিসিদের ভূমিকা থাকে। আমরা বলেছি, আগামী দিনে তারা যেন আমাদের আরও সহযোগিতা করেন। দেশে ভোজ্যতেলের উৎপাদন বাড়াতে সরিষার চাষ বাড়ানো হয়েছে জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, আগে বিঘায় এক থেকে দুই মণ ভুট্টা হতো। আমাদের বিজ্ঞানীরা নতুন জাত উদ্ভাবন করার পর এখন বিঘাপ্রতি উৎপাদন হচ্ছে ৭ থেকে ১০ মণ। ডিসিদের মাধ্যমে এ প্রযুক্তিগুলো দ্রæত মাঠে কৃষকের কাছে পৌঁছাতে হবে। যেন চাষিরা এসব গ্রহণ করে। উৎপাদিত পণ্যের বাজারজাতকরণসহ সবকিছুতে জেলা প্রশাসকরা যেন ভূমিকা রাখেন এবং আমাদের সহযোগিতা করেন।

আল্লাহ নিজের হাতে গজব না দিলে দেশে দুর্ভিক্ষ হবে না
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, দেশে দুর্ভিক্ষ হবে না, হওয়ার কোনো চান্স নেই। যদি আল্লাহ নিজের হাতে গজব না ফেলেন। সামনে বোরো, বোরোর আবাদও মানুষ পাগলের মতো করতেছেন। ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেন,আমনের আগে খরার সময় আমরা মনে করছিলাম দুর্ভিক্ষ হবে, আমন হবে না ইত্যাদি ইত্যাদি। এবার আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। তিনি বলেন, খাবার অপচয়টা যাতে রোধ হয়। একটি বিয়ে বাড়িতে দেখা যায় প্রায় ১০ থেকে ১৫ শতাংশ খাবার নষ্ট হয়। এটা রোধ করতে হবে। শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ। পেট ঠান্ডা, মাথা ঠান্ডা।

চালে প্লাস্টিক ব্যাগে থাকলে জব্দের নির্দেশ ডিসিদের
পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেছেন, দেশি চাল প্লাস্টিকের ব্যাগে ভরে বাজারজাত করলে তা জব্দ করতে জেলা প্রশাসকদের (ভিসি) নির্দেশ দিয়েছে সরকার। চলমান ডিসি সম্মেলন থেকে এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় দিনের তৃতীয় অধিবেশন শেষে পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে একসময় কৃষিপণ্য থেকে শুরু করে সব মোড়কে পাটপণ্য ব্যবহার হতো। প্লাস্টিক আবিষ্কারের পর, পাটপণ্য থেকে তারা প্লাস্টিকে চলে যায়। এতে পাটপণ্যের ব্যবহার কমে। এখন আবার পাটপণ্যের ব্যবহার বাড়াতে আমরা চেষ্টা করছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সালমান এফ রহমান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ