Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ০৭ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

সাগরে লঘুচাপ-নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ের আবহ তৈরি

মৌসুমী বায়ুর বিদায় অব্যাহত সারা দেশে গা-জ্বলা ভ্যাপসা গরম ছিটেফোঁটাও বৃষ্টি হয়নি কোথাও

শফিউল আলম | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২২, ১২:০০ এএম

সাগরে লঘুচাপ-নিম্নচাপ-ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টির আবহ বা ঘনঘটা তৈরি হচ্ছে। গতকাল রাতে বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া বিভাগের সর্বশেষ পূর্বাভাসে জানা গেছে, উত্তর আন্দামান সাগর ও এর সংলগ্ন এলাকায় আগামীকাল মঙ্গলবার নাগাদ একটি লঘুচাপের ঘনঘটা সৃষ্টি হতে পারে। এটি ক্রমেই পশ্চিম, উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে পশ্চিম-মধ্য ও সংলগ্ন দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে আগামী বৃহস্পতিবার নাগাদ ঘনীভূত হয়ে সুস্পষ্ট লঘুচাপ এবং পরবর্তী ধাপে নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। লঘুচাপ সৃষ্টির আগেই দেশের সমুদ্র উপকূলীয় অঞ্চলে তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে। কোথাও কোথাও গুমোট আবহাওয়া বিরাজ করছে।

এদিকে বৃষ্টির বাহক দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর বিদায়ের প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। জেঁকে বসছে শুষ্ক আবহাওয়া। বাতাসে জলীয়বাষ্পের হার কমছে। ইতোমধ্যে দেশের উত্তরাঞ্চল থেকে মৌসুমী বায়ু বিদায় নিয়েছে। দেশের অবশিষ্ট অঞ্চল থেকে মৌসুমী বায়ু বিদায় নেওয়ার আবহাওয়াগত অবস্থা অনুকূলে রয়েছে। তাছাড়া বাংলাদেশের সংলগ্ন ভারতের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মৌসুমী বায়ু বিদায় নিচ্ছে।
উত্তর বঙ্গোপসাগরে মৌসুমী বায়ু দুর্বল অবস্থায় রয়েছে। মৌসুমী বায়ুর বিদায় অব্যাহত থাকার সাথে সাথে সারা দেশে ভ্যাপসা গা-জ্বলা গরম পড়ছে। আকাশে তেমন মেঘ নেই। প্রখর রোদে মানুষ গ্রীষ্মকালের মতো ঘেমে-নেয়ে নাকাল। চলতি অক্টোবর মাসে তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ঊর্ধ্বে থাকতে পারে এমনটি জানানো হয় আবহাওয়া বিভাগের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে।

মৌসুমী বায়ু বিদায়ের সাথেই শুরু হয়েছে আবহাওয়ায় স্বাভাবিক পালাবদল। মৌসুমী বায়ু বিদায়ের সাথে সাগরে লঘুচাপ-নিম্নচাপ সৃষ্টি হলে সেখান থেকে শক্তি সঞ্চয় ও ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। কেননা এ সময়ে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা কমে যায়।

এর আগে আমেরিকার আবহাওয়া পূর্বাভাস সংস্থা গ্লোবাল ফোরকাস্ট সিস্টেম মডেলের দেয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, এ মাসের শেষের দিকে বঙ্গোপসাগরে একটি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি, এমনকি সেটি সুপার সাইক্লোনে রূপ নিতে পারে। ‘সিত্রাং’ নামে এই ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে বাংলাদেশ ও ভারতের মাঝামাঝি পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন উপকূলের যে কোন স্থান দিয়ে স্থলভাগে আঘাত করতে পারে। ইতোমধ্যে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য এই ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে সরকারের সতর্ক থাকার কথা জানানো হয়েছে।
গতকাল রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের কোথাও ছিটেফোঁটাও বৃষ্টিপাত হয়নি। এ সময়ে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল সিলেটে ৩৫.১ এবং সর্বনিম্ন তেঁতুলিয়ায় ২১.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকার তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৩৪.১ এবং সর্বনিম্ন ২৫.৭ ডিগ্রি সে.।

আজ সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ জানান বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত, বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া ঢাকাসহ দেশের অন্যত্র আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সাগরে লঘুচাপ-নিম্নচাপ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ