Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৬ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

আজ দেশে ফিরছেন খালেদা জিয়া

প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সংবর্ধনা জানাতে বিএনপি’র সর্বাত্মক প্রস্তুতি
স্টাফ রিপোর্টার : ছেলে-পুত্রবধূ-নাতনীকে দুবাইতে বিদায় দিয়ে আজ সন্ধ্যায় ঢাকায় ফিরবেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া।
আজ সকালে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে ছেলে তারেক রহমান, ছেলের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান, নাতনী জাইমা রহমান, ছোট ছেলে মরহুম আরাফাত রহমান কোকো’র স্ত্রী শর্মিলা রহমানকে নিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন দুবাই আসবেন। সেখানে তারেক রহমানসহ পরিবারের সদস্যদের বিদায় দিয়ে বেগম খালেদা জিয়া ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন। বিএনপি চেয়ারপার্সনের সফরসঙ্গী এনামুল হক চৌধুরী ইনকিলাবকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ম্যাডামসহ সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং তার পরিবারের সদস্যরা ভোরে কিং আব্দুুল আজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়বেন। দুবাই আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে যাত্রা বিরতিকালে ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) তারেক রহমানসহ পরিবারের সদস্যদের লন্ডনগামী ফ্লাইটে বিদায় জানিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন। কোন সমস্যা না হলে সন্ধ্যায় ঢাকায় পৌঁছাবেন বিএনপি প্রধান।
এনামুল হক চৌধুরী জানান, যাত্রার আগে বুধবার রাতে মসজিদুন নববীতে ম্যাডামসহ তারেক রহমান এবং তার পরিবারের সদস্যরা নামাজ আদায় করবেন। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত করেছেন।
এদিকে বেগম খালেদা জিয়াকে ঢাকায় হযরত শাহ জালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছালে দলের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত থেকে সম্বর্ধনা জানাবে। মহানগর ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের আজ বিকাল ৪টার মধ্যে বিমান বন্দরের বাইরের সড়কের দুই পাশে অবস্থান নেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় দপ্তর থেকে সংশ্লিষ্ট নেতাদের বলা হয়েছে।
দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও মহানগর আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া পবিত্র হজ পালন শেষে দেশে ফিরছেন। দলীয় প্রধানকে যথাযথ সম্মানপূর্বক সংবর্ধনা দিতে সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছি। আমরা কাল (আজ) নেতা-কর্মীরা বিমান বন্দরের সামনে সমবেত হয়ে নেত্রীকে অভ্যর্থনা জানাবো। নেতা-কর্মীদের বিকাল ৪টায় বিমান বন্দরের দুই পাশে সড়কে সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়ানোর দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। একই সাথে এই সংবর্ধনায় যেন কোন প্রকার ঝামেলা বা বাধাবিঘœ সৃষ্টি না করা হয়, সেজন্য সরকারের প্রতি আমার চাওয়া থাকবে।
গত ৮ সেপ্টেম্বর পবিত্র হজ পালনে ঢাকা থেকে বেগম খালেদা জিয়া এবং লন্ডন থেকে তারেক রহমানসহ পরিবারের সদস্যরা হজ পালন করতে জেদ্দায় যান। সউদী আরবে বাদশাহ সউদ বিন আবদুল আজিজের আমন্ত্রণে রাজকীয় অতিথি হিসেবে তারা হজ পালন করেছেন।
হজ শেষে গত শনিবার কা’বা শরীফে বিদায়ী তাওয়াফ করে বিএনপি চেয়ারপার্সনসহ পরিবারের সদস্যরা জেদ্দা থেকে সাউদিয়া এয়ার লাইন্সের ফ্লাইটে মদিনায় পৌঁছেই মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) রওজা মোবারক জিয়ারত করেন।
বেগম খালেদা জিয়ার এটি তৃতীয় হজ। এর আগে ১৯৯১ সালে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে একবার এবং ১৯৯৭ সালে বিরোধী দলে থাকাকালে তিনি হজ করেন। তবে প্রায় প্রতিবছরই রমজানে তিনি ওমরাহ পালন করেন।
তারেক রহমান, তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান, মেয়ে জাইমা রহমান এবং মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথির এটি প্রথম হজ। ২০১৪ সালে তারা খালেদা জিয়ার সঙ্গে ওমরাহ করেন।
বিএনপি চেয়ারপার্সনের সঙ্গে তার উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য এনামুল হক চৌধুরী, তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শরীফ শাহ কামাল তাজ, একান্ত সচিব আব্দুস সাত্তার, আলোকচিত্রী নুরুউদ্দিন আহমেদ, গৃহকর্মী ফাতেমা বেগমও হজ করেন।
তারেক রহমানের শাশুড়ি ইকবাল মান্দ বানু, শাহিনা খান জামান বিন্দু ও স্বামী সৈয়দ শফিউজ্জামানও এবার হজ করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আজ দেশে ফিরছেন খালেদা জিয়া

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ